আজ মঙ্গলবার,২৩শে অক্টোবর, ২০১৮ ইং,৮ই কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সময়: দুপুর ১:৫৯
  • চীনে বিশ্বের দীর্ঘতম সেতু উদ্বোধন
  • নওগাঁর আত্রাইয়ে শীতকালীন আগাম সবজি চাষে ব্যস্ত কৃষক
  • ফুলবাড়ীর শাখা যমুনা নদীতে রাবারড্যাম নির্মানের দাবী এলাকাবাসীর
  • দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে ১শ, কোটি টাকার সুপারি বিদেশে রফতানি হচ্ছে
  • ঠাকুরগাঁওয়ে সন্ধান মিললো ভেজাল চানাচুর কারখানার
  • প্রেসক্লাবে রাতের অন্ধকারে শিক্ষকদের ওপর বেপরোয়া লাঠিচার্জ!
  • চট্টগ্রামে ট্রাকের ধাক্কায় চালকসহ নিহত-১

খুলনার আলোচিত ইউপি চেয়ারম্যান মিহিরের বিরুদ্ধে বাড়ি দখল ও মারধরের অভিযোগে আদালতে মামলা

খুলনার আলোচিত ইউপি চেয়ারম্যান মিহিরের বিরুদ্ধে বাড়ি দখল ও মারধরের অভিযোগে আদালতে মামলা

জ্যোতি বাছাড়( খুলনা): খুলনার দাকোপ উপজেলার কৈলাশগঞ্জ ইউনিয়নের আলোচিত চেয়ারম্যান মিহির মন্ডলের বিরুদ্ধে এবার হামলা ও ভাংচুর করে বাড়ি দখলের চেষ্টার অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। উপজেলার ধোপাদী গ্রামের রাখাল গোমস্তার পুত্র নির্মল গোমস্তা বাদি হয়ে রোবিবার খুলনার আইন-শৃংখলা বিঘ্নকারী অপরাধ (দ্রুত বিচার) আদালতে মামলাটি দায়ের করেন।

মামলায় চেয়ারম্যান মিহির ছাড়াও আরও ৭জনকে আসামি করা হয়েছে। অপর আসামিরা হচ্ছে- সাধন সরদার, সুদর্শন গাইন, রূপক গাইন, নিতিশ সরকার, তাপষ মিস্ত্রি, উত্তম মন্ডল ও অভিজিৎ মিস্ত্রি।

বাদিপক্ষের আইনজীবী এসএম রূহুল আমিন জানান, আদালত মামলাটি গ্রহণপূর্বক অতিরিক্ত পুলিশ সুপারকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন। আগামী ২৮ আগষ্ট মামলার পরবর্তী দিন ধার্য করা হয়েছে। ধার্য তারিখের মধ্যেই তদন্ত রিপোর্ট দাখিল করতে বলেছেন আদালত।

আরজিতে বাদি নির্মল গোমস্তা উল্লেখ করেন, তিনি স্থানীয় ধোপাদী গ্রামে ক্রয়কৃত জমিতে বসবাস করছেন। কিন্তু আসামিরা তার জমি দখলের জন্য ষড়যন্ত্র করতে থাকে। সে কারণে তিনি ১৮ মার্চ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। আদালত শান্তি-শৃংখলা বজায় রাখার জন্য দাকোপ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেন। এরই মধ্যে আসামিরা ১৫ জুলাই বাড়িতে গিয়ে বাদিকে খুঁজতে থাকে। না পেয়ে তার স্ত্রী-সন্তানসহ স্বজনদের মারধর এবং ভাংচুর করে।

উল্লেখ্য, ইউপি চেয়ারম্যান মিহির মন্ডলের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার, মারধর, নির্যাতন এবং প্রতিবাদকারীদের এলাকা ছেড়ে চলে যাওয়ার হুমকিসহ অসংখ্য অভিযোগ উঠেছে। তার বিরুদ্ধে ৩২টি মামলা রয়েছে। এছাড়া ১৫টি সাধারণ ডায়রিও রয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইজিপি, বিভাগীয় কমিশনার, স্থানীয় সরকার সচিব, জেলা প্রশাসক, গোয়েন্দা সংস্থাসহ ১৪টি দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন একই ইউনিয়নের ১নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য গাজী ফয়সাল আলম।

image_print

Leave a Reply

samakalnews24.com এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

খুলনা বিভাগ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ