আজ সোমবার,২২শে জানুয়ারি, ২০১৮ ইং,৯ই মাঘ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সময়: সকাল ১০:২২
  • আইপিএল নিলামের চূড়ান্ত তালিকায় ৬ বাংলাদেশি
  • আরশির অর্ধনগ্ন নাচের ভিডিও ভাইরাল!
  • সরাসরি খারাপ কাজের জন্য আমাকে অফার করা হয়েছে
  • বিয়ের আগেই ‘অন্তঃসত্ত্বা’ হওয়া বলিউড নায়িকারা…
  • ভাঁজ করা যাবে স্যামসংয়ের স্মার্টফোন
  • কোন বয়সে কত বার মিলন হওয়া উচিত!
  • মৃত্যু ঝুঁকি বাড়াচ্ছে গ্রামীণফোন!

“২৫ শে মার্চের কালো রাত” বিশ্ব ইতিহাসে একটি জঘন্যতম বেদনার নামঃ সরদার মুনসুর মুন্সী


সরদার মুনসুর মুন্সী

বিশেষ প্রতিনিধিঃ ১৯৭১ সালে ২৫ শে মার্চের ভয়াল সেই কালো রাত আমাদের জীবনের তথা বিশ্ব ইতিহাসে একটি জঘন্যতম বেদনার নাম বলে অবহিত করলেন মালয়েশিয়া শাখা যুবদলের সংগ্রামী নেতা সরদার মুনসুর মুন্সী। তিনি ১৬ই ডিসেম্বর স্বাধীনতা অর্জনের স্মৃতিচারন করে বলেন বাঙালী জাতিকে হত্যার জন্যে জেনারেল ইয়াহিয়া খান ২৫ মার্চ তারিখটা বেছে নিয়েছিলেন। কারণ সে বিশ্বাস করত এটা তার জন্যে একটি শুভদিন। দুই বছর আগে ঐ দিনে সে আইয়ুব খানের কাছ থেকে ক্ষমাতা পেয়ে পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট হয়েছিল। ২৫ মার্চ রাতে বাংলাদেশের ইতিহাসের নিষ্ঠুরতম গণহত্যার আদেশ দিয়ে সে সন্ধ্যাবেলা পশ্চিম পাকিস্তানে চলে যান। জেনারেল ইয়াহিয়া খান সেনাবাহিনীকে বলেছিলেন, ৩০ লক্ষ বাঙালিকে হত্যা করবে, দেখবে তারা আমাদের হাত চেটে খাবে। গণহত্যার নিখুঁত পরিকল্পনা অনেক আগে থেকেই করা ছিল তাদের। কিন্তু সেই নীল নকশার নাম অপারেশন সার্চলাইট, সেখানে স্পষ্ট করে লেখা আছে কেমন করে আলাপ আলোচনার ভান করে কালক্ষেপণ করা হবে, কীভাবে বাঙালি সৈন্যদের নিশ্চিহ্ন করা হবে, কীভাবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আক্রমণ করা হবে, সোজা কথায়, কীভাবে একটি জাতিকে ধ্বংস করার প্রক্রিয়া শুরু করা হবে।

ঢাকা শহরের প্রতিটি রাস্তায় ব্যারিকেড দিয়ে রাখা হয়েছিল, লক্ষ্যস্থলে পৌঁছাতে দেরি হবে তাই নির্দিষ্ট সময়ের আগেই রাত সাড়ে এগারোটায় পাকিস্তান সেনাবাহিনী অপারেশন সার্চলাইটের কাজ শুরু করে দিয়েছিল। শুরু করে পৃথিবীর জঘন্যতম হত্যাযজ্ঞ, এই হত্যাযজ্ঞের যেন কোনো সাক্ষী না থাকে সেজন্যে সকল বিদেশী সাংবাদিককে দেশ থেকে বের করে দেয়া হয়েছিল। তারপরেও সাইমন ড্রিং নামে একজন অত্যন্ত দুঃসাহসী সাংবাদিক জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ঢাকা শহরে লুকিয়ে এই ভয়াবহ গণহত্যার খবর ওয়াশিংটন পোস্টের মাধ্যমে সারা পৃথিবীকে জানিয়েছিলেন।

ঢাকা শহরের নিরীহ মানুষের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ার আগে পাকিস্তান মিলিটারি সব বাঙালি অফিসারকে হত্যা সহ গ্রেপ্তার করে নেয়, সাধারণ সৈন্যদের নিরস্ত্র করে রাখে। পিলখানায় ই.পি. আরদেরকেও নিরস্ত্র করা হয়েছিল, তারপরেও তাদের যেটুকু সামর্থ্য ছিল সেটি নিয়ে সারারাত যুদ্ধ করেছে। রাজারবাগ পুলিশ লাইনে পুলিশদের নিরস্ত্র করা সম্ভব হয়নি এবং এই পুলিশবাহিনীই সবার আগে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর সাথে সত্যিকার একটি যুদ্ধ শুরু করে। পাকিস্তান সেনাবাহিনী অনেক ক্ষতি স্বীকার হয়ে পিছিয়ে গিয়ে ট্যাংক, মর্টার, ভারী অস্ত্র, মেশিনগান নিয়ে পাল্টা আক্রমণ করে শেষ পর্যন্ত রাজারবাগ পুলিশ লাইনের নিয়ন্ত্রণ নেয়।

২৫ মার্চের বিভীষিকার কোনো শেষ নেই। পাকিস্তান সেনাবাহিনীর একটি দল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এসে ইকবাল হল (বর্তমান সার্জেন্ট জহুরুল হক হল) আর জগন্নাথ হলের সব ছাত্রকে হত্যা করল। হত্যার আগে তাদের দিয়েই জগন্নাথ হলের সামনে একটি গর্ত করা হয়, যেখানে তাদের মৃতদেহকে মাটি চাপা দেয়া হয়।

এই নিষ্ঠুর হত্যাকান্ডের দৃশ্যটি বুয়েটের প্রফেসর নূর উল্লাহ তাঁর বাসা থেকে যে ভিডিও করতে পেরেছিলেন, সেটি এখন ইন্টারনেটে মুক্তিযুদ্ধের আর্কাইভে সংরক্ষিত আছে, পৃথিবীর মানুষ চাইলেই নিজের চোখে সেটি দেখতে পারে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শুধু ছাত্রদের নয় সাধারণ কর্মচারী এমনকি শিক্ষকদেরকেও তারা হত্যা করে। আশেপাশে যে বস্তিগুলো ছিল সেগুলো জ্বালিয়ে দিয়ে মেশিনগানের গুলিতে অসহায় মানুষগুলোকে হত্যা করে। এরপর তারা পুরানো ঢাকার হিন্দুপ্রধান এলাকাগুলো আক্রমণ করে, মন্দিরগুলো গুঁড়িয়ে দেয়, বাড়িঘর জ্বালিয়ে দেয়। যারা পালানোর চেষ্টা করেছে সবাইকে পাকিস্তান মিলিটারি গুলি করে হত্যা করেছে।

২৫ মার্চ ঢাকা শহর ছিল নরকের মতো, যেদিকে তাকানো যায় সেদিকে আগুন আর আগুন, গোলাগুলির শব্দ আর মানুষের আর্তচিৎকার।
সেদিন জাতির চরম দুর্সময়ে মেজর জিয়াউর রহমান চট্টগ্রাম কালুরঘাট বেতারকেন্দ্র থেকে ২৬শে মার্চ মধ্যরাতে ঘোষনা করেন বাংলাদেশের স্বাধীনতা। দীর্ঘ ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে ১৬ই ডিসেম্বর স্বাধীন হয় আমাদের এই ভুখন্ড। বিশ্ব মানচিত্র লাল-সবুজের সংমিশ্রণে মাথা উচুু করে দাড়ায় একটি নাম “বাংলাদেশ”। স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান সেদিন না থাকলে আজ হয়তো আমরা মুক্ত বাতাসে নিঃশ্বাস নিতে পারতাম না। বিজয়ের মাসে সবাইকে গোলাপের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে সভার সমাপ্তি ঘোষনা করেন সরদার মুনসুর মুন্সী।



samakalnews24.com এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

প্রবাসের খবর বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ