২০শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং ৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
আক্কেলপুর পৌর মেয়রের সচেতনতায় লবণ লঙ্কায় দিশেহারা হয়নি... লবণের দাম বৃদ্ধি গুজবে বেনাপোল বাজারে ক্রেতাদের ভিড় দক্ষিণ সুনামগঞ্জে বাজার মনিটরিংয়ে ইউএনও, ৭... ঠাকুরগাঁওয়ে অতিরিক্ত মূল্যে লবন বিক্রি : তিন ব্যবসায়ীর... চাঁদপুরের দুই গ্রুপের দ্বন্দ্বে মা’দক বি’রোধী...

আখাউড়ায় বাড়ীর অংশীদার বুঝে পেতে ওয়ারিশদারদের সংবাদ সম্মেলন

 দ্বীন ইসলাম খাঁন,আখাউড়া, সমকালনিউজ২৪

ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার আখাউড়ায় পৌরসভাস্থ সাবেক চেয়ারম্যান প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা মাইনুল ইসলামের ডুপ্লেক্স বাড়ীর নিজেদের অংশীদারিত্ব বুঝে পেতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন তার ভাই মোঃ ফকরুল ইসলাম ও তার তিন বোন আয়েশা বেগম, দিলারা বেগম, ফেরদৌস রহমান। গতকাল রবিবার বিকেলে মাইনুল ইসলামের বাড়ীর সামনে ফকরুল ইসলামের দখলীয় জমির অংশে সংবাদ সম্মেলন করে তারা এ দাবি করেন।

সংবাদ সম্মেলনে ফকরুল ইসলাম ও তার তিন বোন অ’ভিযোগ করে বলেন, প্রয়াত সাবেক চেয়ারম্যান মাইনুল ইসলাম এই দুতলা ডুপ্লেক্স বাড়ী নির্মান করার সময় কয়েক কিস্তিতে ৫৬ লাখ টাকা নিয়েছেন, বিনিময়ে ডুপ্লেক্স বাড়ীর দূ’তলার তিন রুমের দুই রুম তাদের কে দিয়েছেন কিন্তু মাইনুল ইসলাম মারা যাওয়ার পর তার ছেলে রাজীব তাদের কে বাড়ী থেকে বের করে দিয়েছেন তাদের দুই রুমে থাকতে না দিয়ে তাদের সাথে দূর্ব্যবহার করছেন এবং আমরা তাকে কোন হুমকি দেইনি বরং রাজীব আমাদের হুমকি দিচ্ছে, এসময় মাইনুল ইসলামের তিন বোন বলেন আমরা আমাদের পৈতৃক সম্পত্তির আমাদের অংশ দাবি করছি, আমরা দীর্ঘদিন ধরে এই দাবি করলেও তারা বিভিন্নভাবে কালক্ষেপণ করে আসছেন। তারা আরো অ’ভিযোগ করে বলেন, আমরা তিন বোন ঢাকা থেকে এসেছি কিন্তু আমরা আসবো জেনে আমাদের ভাইপো মাজহারুল ইসলাম রাজিব বাড়ীতে তালা লাগিয়ে তার পরিবার নিয়ে বাহিরে চলে গেছে। ফকরুল ইসলাম ও তার তিন বোন বলেন আমার ভাই মুক্তিযোদ্ধা না এবং এই বাড়ীর জায়গা এখনো বাবার নামে আছে মাইনুল ইসলাম কোন কাজ করতেন না। এসময় বিভিন্ন সময় ঘটে যাওয়া ঘটনার বিস্তারিত বর্ননা দিয়ে সাংবাদিকদের রোটারী একটি দলিল ও বাবার নামে দলিল দেখিয়ে এসব দাবি করেন করেন ফকরুল ইসলাম ও তার তিন বোন।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে, মাজহারুল ইসলাম রাজিব তার বিরুদ্ধে করা ফকরুল ইসলাম ও তিন বোনের সব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তারা আমার বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন অভিযোগ করে অনৈতিকভাবে আমার পিতা প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা মাইনুল ইসলামের এককভাবে নির্মাণ করা ডুপ্লেক্স বাড়ীর অংশীদার দাবি করছেন, আমার পিতা বেচেঁ থাকতেই ওয়ারিশদের আমার চাচা ও ফুফুর যাবতীয় পাওনা সমাধান করে গেছেন, এখন আমার পিতার মৃ’ত্যুর পর এ দাবি হাস্যকর। রাজিব আরো বলেন, আপনারা সাংবাদিকেরা দেখুন তিনি দাবির স্বপক্ষে কোন প্রমান দেখাতে পারেনি শুধু একটি ভূয়া নোটারী দলিল দেখিয়ে সবাই কে বিভ্রান্ত করছেন।

উক্ত সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিক সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ।

 

‘বিদ্রঃ সমকালনিউজ২৪.কম একটি স্বাধীন অনলাইন পত্রিকা। সমকালনিউজ২৪.কম এর সাথে দৈনিক সমকাল এর কোন সম্পর্ক নেই।’

 

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
Uncategorized বিভাগের সর্বশেষ
ওপরে