২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং ১১ই ফাল্গুন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
বরিশাল শেবাচিমে ময়লার স্তূপে মিললো ২২ অপরিণত শিশুর... স্বামীর লাশ ওয়ারড্রবে রেখে অফিস করলেন স্ত্রী! ঐক্যফ্রন্টকে গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর দাওয়াত চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ করার দাবিতে মানববন্ধন বন্য হাতির আক্রমণে নিহত জাসদ নেতা সাইমুন কনক

ঐতিহ্যবাহী জবাই বিল এখন পাখির কলতানে মুখরিত।

 নাজমুল হক নাহিদ, নওগাঁ প্রতিনিধি। সমকাল নিউজ ২৪

নওগাঁর সাপাহার উপজেলার ঐতিহ্যবাহী জবাই বিল এখন অতিথি পাখির কিচির মিচির ডাক আর কলতানে মুখরিত হয়ে উঠেছে। আবহমান বাংলার চিরচেনা দৃশ্য মুক্ত আকাশে ডানা মেলে উড়ে চলা সুদর্শনীয় বিহঙ্গের দল,হঠাৎ করেই খাদ্যের সন্ধ্যানে ঝাঁক ধরে নিচের বিলের পানিতে অবাধ বিচরণ দৃশ্য নিজ চোখে দেখতে কার না ভাল লাগে। চলতি মৌসুমে এমনই হাজার হাজার অতিথি পাখির আগমন ঘটেছে ঐতিহ্যবাহী জবাই বিল ও পাশের পুর্ণভবা নদীতে। নওগাঁ জেলার সীমান্তবর্তী সাপাহার উপজেলা সদর থেকে প্রায় ৮ কি:মি অদূরে শিরন্টি,গোয়ালা ও আইহাই,পাতাড়ী এই ৪ ইউনিয়নের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত জবাই বিল এখন হাজার হাজার অতিথি পাখির নিরাপদ বিচরণ ভুমিতে পরিনত হয়েছে।

 

চলতি বছরে এই ঐতিহ্যবাহী জবাই বিল ও পূর্নভবা নদীতে অতিথি পাখির আগমন অন্যান্য বছরের তুরনায় অনেক বেশী। এই বিল ও নদীতে অতিথি পাখির জন্য পর্যাপ্ত খাবার থাকায় প্রতি বছর শীতের সময় হাজার হাজার অতিথি পাখির আগমন হয়। এখানে শামুকখোল, বক,কক, বালিহাঁস, চাহা,রাজহাঁস,পাতি সরালী সহ নানা প্রজাতির পাখির কিচিরমিচির কলতানে সব সময় মুখরিত থাকে এই বিলের সর্বত্র। এই বিলের ছোট ছোট মাছ আর শামুকই মূলত এসব পাখির প্রধান খাদ্য। স¤প্রতি এই বিলে অবাধে অতিথি পাখি শিকার শুরু হলে বিষয়টি নিয়ে জাতীয় দৈনিক ও স্থানীয় পত্রিকায় ফলাও করে সংবাদ প্রকাশ করা হয়। ফলে সাপাহার উপজেলা নির্বাহী অফিসার কল্যাণ চৌধুরী বিলের অতিথি পাখি শিকার প্রতিরোধে জরুরী পদক্ষেপ গ্রহণ করেন। নির্বাহী অফিসারের সময় উপযোগী পদক্ষেপে মাত্র কয়েক দিনের মধ্যে অসাধু শিকারীগণ ভয়ে বিল এলাকায় তাদের কর্মকান্ড বন্ধ করে গা ঢাকা দেয়। জবাই বিল জীব বৈচিত্র সংরক্ষন কমিটির সভাপতি সোহানুর রহমান সবুজ জানান তাদের সংগঠনের সদস্য গণ সেচ্ছায় বিলের বিভিন্ন পয়েন্টে দিন রাত জনগণের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে পথ সভা ও প্রচার প্রচারণা চালিয়ে আসছে। তার মতে ইতোপুর্বে বিলে এত অতিথি পাখির আগমণ দেখা যায়নি। প্রতি দিন শীত ও কুয়াশা উপেক্ষা করে সকাল- সন্ধ্যা বিভিন্ন এলাকা থেকে পাখি প্রেমি নারী পুরুষ দর্শনার্থীর আগমন ঘটছে। বিলের এই অতিথি পাখির কলতান,মুক্ত আকাশে ডানা মেলে উড়ে চলা,আবার বিলের পানিতে নেমে আসা ও খাবার সন্ধানের অপরূপ দৃশ্য উপভোগ করতে করতে মনের অজান্তেই পকেট থেকে মোবাইল ফোন বের করে অতিথি পাখির অবাধ বিচরণের মনোমুগ্ধকর দৃশ্য ধারনের লোভ সম্বরণ করতে পারছেন না দর্শনার্থীগণ। সাপাহার উপজেলা নির্বাহী অফিসার কল্যাণ চৌধুরী এই বিলের অতিথি পাখি রক্ষা ও কতিথ শিকারীদের অবৈধ কর্মকান্ড কঠোর হস্তে প্রতিহতের ব্যবস্থা করবেন বলে সাংবাদিকদের জানান।

Print Friendly, PDF & Email

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
ওপরে