২০শে আগস্ট, ২০১৯ ইং ৫ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
ই’য়াবা সহ আটক-১ মহাদেবপুর-ছাতড়া সড়ক খানাখন্দে ভরা; দূর্ভোগ চরমে বগুড়ায় স্বেচ্ছাসেবকদলের ৩৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন সাংবাদিক ইকবাল হোসেনের শ্বশুরের ইন্তেকালে শোক প্রকাশ দুর্গাপুরে মা সমাবেশ

ঐতিহ্যবাহী শোলাকিয়ায় সকাল সাড়ে ৮টায় ঈদ জামাত

  সমকাল নিউজ ২৪

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের নামের আগে ‘শহীদ’ শব্দটি নিয়ে সংসদে হাস্যরসের সৃষ্টি হয়েছে।

গতকাল সোমবার ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বি মিয়ার সভাপতিত্বে প্রস্তাবিত বাজেটের উপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নেন আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য ও জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী মমতাজ বেগম।

মমতাজ বলেন, ‘জিয়াউর রহমানকে ‘শহীদ’ জিয়া বলা হয়। আমি যখন প্রথম প্রথম শহীদ জিয়া শুনতাম তখন আমি মনে করতাম শহীদ বোধ হয় জিয়ার আরেক নাম। একজন মানুষের ২/৩টি নাম থাকে না। আমি সেটা মনে করতাম। কারণ শহীদেরতো সংজ্ঞা আছে কোরআন হাদিসে। দেশের জন্য, যুদ্ধে যারা প্রাণ হারান তাদেরকে শহীদ বলা হয়। কিন্তু জিয়া কোন যুদ্ধে শহীদ হয়েছিলেন আমার জানা নেই।’

সাংসদ মমতাজের এই বক্তব্যের পর অনেকেই এর সঙ্গে সহমত পোষণ করেন। তবে বিএনপি নেতারা মমতাজের বক্তব্যে উষ্মা প্রকাশ করেছেন।

‘শহীদ’ জিয়া প্রসঙ্গ ছাড়াও মমতাজ বাজেট আলোচনায় অংশ নিয়ে নারীদের দুর্নীতির হার কম প্রসঙ্গে মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, ‘বিকল্প ধারার সদস্য মাহী বি. চৌধুরী বলেছেন দেশে নারীর উন্নয়ন হয়েছে। কিন্তু নারীরা একটি বিষয়ে পিছিয়ে আছে, সেটা হলো দুর্নীতিতে। আসলে তিনি ঠিকই বলেছেন। বীজ যদি ভালো হয় গাছও ভালো হয়। আমাদের যিনি নেতৃত্ব দিচ্ছেন তিনি হলেন শেখ হাসিনা। তিনি দুর্নীতির প্রশ্রয় দেন না। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে।’

ঐতিহ্যবাহী শোলাকিয়া ঈদগাহে এবার সকাল সাড়ে ৮টায় ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এবারের ১৯২তম ঈদুল আজহার জামাতে ইমামতি করবেন মাওলানা হিফজুর রহমান খান। শোলাকিয়া ঈদগাহের নিয়মিত ইমাম ইসলাহুল মুসলিহীন পরিষদের চেয়ারম্যান মাওলানা ফরীদ উদ্দীন মাসউদ হজে যাওয়ায় বিকল্প ইমাম হিসেবে মাওলানা হিফজুর রহমান খান জামাতে ইমামতি করবেন।

শনিবার (১০ আগস্ট) দুপুরে শোলাকিয়া ঈদগাহের প্রস্তুতি ও সার্বিক অবস্থা সরেজমিন পরিদর্শন করেছেন শোলাকিয়া ঈদগাহ মাঠ পরিচালনা কমিটির সভাপতি জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী, পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার), কিশোরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মাহমুদ পারভেজ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. আব্দুল্লাহ আল মাসউদ, পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতি পাওয়া কিশোগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. নাজমুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মো. মিজানুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) অনির্বান চৌধুরী, শোলাকিয়া ঈদগাহ মাঠ পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আব্দুল কাদির মিয়া, কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মো. আবুবকর সিদ্দিকসহ জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা।

পরিদর্শন শেষে জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী জানান, ২০১৬ সালের জঙ্গি হামলার ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ঈদগাহ মাঠের নিরাপত্তায় বিজিবি মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল। এবারও সে সিদ্ধান্ত বহাল রয়েছে। এছাড়া মাঠের নিরাপত্তায় র‌্যাব, পুলিশসহ বিপুল পরিমাণ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন থাকবে।

সুষ্ঠুভাবে ঈদজামাত আদায়ের লক্ষে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত বিজিবি, র‌্যাব ও পুলিশ ফোর্সকে আইনগত দিকনির্দেশনা দেয়াসহ ম্যাজিস্ট্রেরিয়াল দায়িত্ব পালনের জন্য ঈদগাহ মাঠের বিভিন্ন পয়েন্ট ও এলাকায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

গৃহীত প্রস্তুতির বিবেচনায় ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের অংশগ্রহণে এবারও উৎসব মুখর পরিবেশে সুন্দর ও সুচারুভাবে ঈদজামাত অনুষ্ঠানের ব্যাপারে আশাবাদ প্রকাশ করেছেন জেলা প্রশাসক।

জেলা প্রশাসক আরো জানান, ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ময়দানের ঈদ জামাতে দূর-দূরান্তের মুসল্লিদের অংশগ্রহণের সুবিধার্থে প্রতিবারের ন্যায় এবারও ঈদের দিন বাংলাদেশ রেলওয়ে ২টি বিশেষ ট্রেন পরিচালনা করবে।

সোমবার (১২ আগস্ট) ঈদুল আজহার দিন ‘শোলাকিয়া ঈদ স্পেশাল’ নামের ২টি বিশেষ ট্রেনের একটি ভৈরব বাজার থেকে এবং অপরটি ময়মনসিংহ থেকে কিশোরগঞ্জের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসবে।

পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার) জানান, শান্তিপূর্ণভাবে ঈদজামাত অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে মাঠের বাইরে, মাঠের ভেতরে ও প্রবেশ পথে চার স্তরের নিরাপত্তা পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। মাঠের ভিতর-বাহিরে সাদা পোশাকেও পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা সতর্ক অবস্থানে থাকবেন। সার্বিক প্রস্তুতির বিবেচনায় নির্বিঘ্নে শোলাকিয়ায় মুসল্লিগণ ঈদুল আজহার জামাত আদায় করতে পারবেন বলে পুলিশ সুপার আশা প্রকাশ করেন।

শোলাকিয়ার বৃহত্তম জামাতে ঈদের নামাজ আদায়ের জন্য প্রতিবারই জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে মুসল্লিগণ ছুটে আসেন। তবে কোরবানীর ব্যস্ততার কারণে ঈদুল আজহার জামাতে ঈদুল ফিতরের তুলনায় মুসল্লির সংখ্যা অনেক কম হয়ে থাকে।

১৮২৮ সালে জেলা শহরের পূর্বপ্রান্তে নরসুন্দা নদীর তীরে প্রায় ৭ একর জমির উপর এ মাঠের গোড়াপত্তন হয়। ওই বছর স্থানীয় সাহেব বাড়ির উর্দ্ধতন পুরুষ সৈয়দ আহমদ (র.) এর ইমামতিতে ঈদের প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হয়। সে ঈদের জামাতে মুসল্লির সংখ্যা দাঁড়িয়েছিল ১ লাখ ২৫ হাজার অর্থাৎ সোয়া লাখ। এই সোয়া লাখ থেকেই উচ্চারণ বিবর্তনে বর্তমানে ‘শোলাকিয়া’ নামকরণ হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
ওপরে