২০শে মে, ২০১৯ ইং ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
৬০কিলোমিটার বেগে ঝড় আসছে , নদী বন্দরে সতর্ক সংকেত জারি! বানারীপাড়ায় ইয়াবা সহ মাদকসেবী আটক আখাউড়ায় ফাঁসিতে ঝুলন্ত অবস্থায় যুবকের লাশ উদ্ধার। জৈন্তাপুরে পূর্ব বিরোধের জের ধরে চাচা ভাতিজার সংঘর্ষে... নওগাঁয় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাড়িঘর ভাঙচুর ও নারীর...

কুমিল্লায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে শ্রমিক নিহত; পিতার দাবী হত্যা।

 বারী উদ্দিন আহমেদ, কুমিল্লা প্রতিনিধি। সমকাল নিউজ ২৪

নাঙ্গলকোটে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে রিয়াদ হোসেন (১৭) নামের এক ওয়ার্কসপ শ্রমিকের করুণ মৃত্যু হয়েছে। তবে নিহতের পিতা রেজাউল হকের দাবী তার সন্তানকে হত্যা করা হয়েছে। গত বৃহষ্পতিবার রাত সাড়ে বারটায় উপজেলার রায়কোট উত্তর ইউপির শান্তির বাজারের শাহাবুদ্দিনের ওয়ার্কসপে এ ঘটনা ঘটে। নিহত রিয়াদ রায়কোট দক্ষিণ ইউপির মালিপাড়া গ্রামের হোটেল শ্রমিক রেজাউল হকের ছেলে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

স্থানীয় ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, উপজেলার রায়কোট দক্ষিণ ইউনিয়নের মালিপাড়া পাশ্চিপাড়ার হোটেল শ্রমিক রেজাউল হকের ছেলে রিয়াদ হোসেন গত নয় মাস থেকে রায়কোট উত্তর ইউনিয়নের শান্তির বাজারে শাহবুদ্দিনের ওয়ার্কসপে কাজ করে আসছিলেন। বৃহষ্পতিবার রাত সাড়ে বার টায় রিয়াদ কাজ করা অবস্থায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে আহত হয়। আহত অবস্থায় রিয়াদকে উদ্ধার করে নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক রিয়াদকে মৃত ঘোষণা করেন।

ওইদিন রাতেই ওয়ার্কসপ মালিক শাহাবুদ্দিনের দু‘ভাই রিয়াদের লাশ তার মা-বাবার কাছে দিয়ে বলেন, থানা পুলিশ করার দরকার নেই। পুলিশ লাশ নিয়ে কাটাকাটি করবে চাপ সৃষ্ঠি করে।

নিহতের রিয়াদের পিতা রেজাউল হক ও মা পেয়ারা বেগম বলেন, রাত একটার সময় রিয়াদের মামি বাড়িতে মুঠোফোনে জানায় রিয়াদ মারা গেছে। খবর পেয়ে হাসপাতালে গিয়ে রিয়াদের মরদেহ দেখতে পাই। তার শরীরে কোন আঘাতের চিহৃ নেই। আমার ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে। আমরা আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর নিকট সঠিক তদন্তের মাধ্যমে ছেলে হত্যার বিচার চাই।

ওয়ার্কসপ মালিক শাহাবুদ্দিন বলেন, আমি বৃহষ্পতিবার রাতে ওয়ার্কসপে ছিলাম না। আমি শুনেছি বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে রিয়াদ মারা গেছে। ওয়ার্কসপের অন্য শ্রমিক মাঈন উদ্দিন জানান, রাত সাড়ে বারটায় রিয়াদ রাতের শিফটে ওয়ার্কসপের ড্রিল মেশিন দিয়ে কাজ করার সময় হঠাৎ চিৎকার করে উঠে। এ সময় সাথে-সাথে বিদ্যুতের সংযোগ বন্ধ করে দেয়া হয়। পরে রিয়াদকে আহত অবস্থায় নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

নাঙ্গলকোট থানার উপ-পরির্দশক (এসআই) ফরিদ উদ্দিন জানান, ৯৯৯ থেকে ফোনের মাধ্যমে খবর পেয়ে নিহতের লাশ উদ্ধার করি। নিহতের শরীরে আঘাতের কোনো চিহৃ নেই। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট আসলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
ওপরে