২৬শে মে, ২০১৯ ইং ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
ফেসবুকের কাছে ১৯৫টি অ্যাকাউন্টের তথ্য চেয়েছে সরকার সদরঘাট জিম্মি ‘খলিফা বাহিনী’র হাতে কৃষকের ঘরে বিয়ের ১১ বছর পর এক সঙ্গে চার সন্তান বাংলাদেশীদের পদচারণায় জমজমাট কলকাতার ঈদ বাজার! স্বামী সন্তানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের...

ক্ষমতাসীন দলের দুই সাংসদের মারামারি, জুতাপেটা।

 আন্তর্জাতিক সমকাল নিউজ ২৪

ক প্রকল্পের ভিত্তি প্রস্তরের নাম পরিবর্তন নিয়ে নির্বাচিত দুই প্রতিনিধির মধ্যে প্রকাশ্যে হাতাহাতি, ধস্তাধস্তি, ঘুষাঘুষি ও জুতাপেটার ঘটনা ঘটেছে। এরা দুজনই ক্ষমতাসীন দলের সদস্য। বুধবার এই ন্যাক্কারজনক ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশ রাজ্যের লক্ষৌ শহর থেকে ২০০ কিলোমিটার দূরে সন্ত কবীর নগরে।

মোদির দল বিজেপির এই দুই জন প্রতিনিধিদের একজন নির্বাচিত সংসদ সদস্য এবং অপরজন নির্বাচিত বিধায়ক।

জানা গেছে, স্থানীয় বিজেপি সাংসদ শরদ ত্রিপাঠির সঙ্গে এক প্রকল্পের ভিত্তি প্রস্তরের নাম পরিবর্তন নিয়ে প্রথমে কথা কাটাকাটি শুরু হয় দলীয় বিধায়ক রাকেশ সিং বাঘেলের। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে পা থেকে জুতো খুলে রাকেশকে পেটাতে শুরু করেন সাংসদ শরদ ত্রিপাঠি। পরে শারদকেও পেটান রাকেশ।

বুধবার সন্তু কবীর নগরে বিজেপির জেলা সমন্বয়ের বৈঠক চলছিলো। এলাকার কাজকর্ম নিয়ে এবং বিভিন্ন প্রকল্প রূপায়ণের বিষয়ে চলছিলো আলোচনা। যেখানে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির একাধিক নেতৃত্ব, সরকারি আমলা এবং পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তারাও।

স্থানীয় একটি রাস্তার ভিত্তি প্রস্তরে কেন নিজের নাম রাখা হয়নি তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন সাংসদ সাংসদ শরদ ত্রিপাঠি। জবাবে বিধায়ক রাকেশ বাঘেল জানান, তার নির্দেশেই ভিত্তি প্রস্তরে ওই সাংসদের নাম রাখা হয়নি। এরপরেই খেপে ওঠেন সাংসদ শরদ ত্রিপাঠি। উত্তপ্ত কথা বিনিময় শুরু হয় দুই জনের মধ্যে।

তারমধ্যেই সাংসদকে জুতা দিয়ে মারার হুমকি দেন রাকেশ বাঘেল। সঙ্গে সঙ্গে পায়ের জুতা খুলে রাকেশকে পেটাতে শুরু করেন সাংসদ শরদ ত্রিপাঠি। মার খাওয়ার পর রাকেশ সিং বাঘেলও জুতা খুলে বেধড়ক মার দেন সাংসদ শরদ ত্রিপাঠিকে। দুই জনপ্রতিনিধির ওই আচরণে হততম্ব হয়ে যান বৈঠকের অন্যান্য বাক্তিরাও। পরে পুলিশ কর্মকর্তাদের মধ্যস্থতায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রেণে আসে।

কিন্ত এর আগেই গোটা ঘটনা সাংবাদিকদের ক্যামেরাবন্দি হয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে। পরে এই ভিডিও ভাইরাল হয়।

Print Friendly, PDF & Email

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
আন্তর্জাতিক বিভাগের আলোচিত
ওপরে