২১শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং ৮ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
আমি চাইলে নিশ্চয় দোষের হবে না বিমানের টয়লেটে মিলল ১৪ কেজি সোনা পিরোজপুরের নাজিরপুরে শেখ হাসিনা সেতুর উদ্বোধন করলেন... রাজাপুর ভিজিডি কার্ড বিতরণে দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ স্কুলছাত্রী নিপাকে কৃত্রিম পা লাগাতে নেয়া হবে বিদেশে

খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তি নিয়ে কী হচ্ছে!

 অনলাইন ডেস্কঃ সমকাল নিউজ ২৪
খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তি নিয়ে কী হচ্ছে!

কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কি প্যারোলে মুক্তি পাচ্ছেন? শর্তসাপেক্ষে পর্দার আড়ালে আলোচনায় প্রস্তুত দুপক্ষই, রাজনৈতিক সমঝোতা হলেই মুক্তি। বিদেশে চিকিৎসা নিতে যাবেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া! এ প্রশ্ন এখন ঘুরপাক খাচ্ছে রাজনৈতিক মহলে। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলছেন, আন্দোলনের মাধ্যমেই খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা হবে। আর আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বলেছেন, আন্দোলন করে লাভ নেই, আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমেই খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে।

প্রশ্ন একটাই খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তি নিয়ে কী হচ্ছে! সূত্রমতে, কারাবন্দী খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বিগ্ন তার পরিবার। যে কোনো মূল্যে কারামুক্ত করে বিদেশে নিয়ে চিকিৎসা করাতে চান তারা। শুধু তাই নয়, দলের বড় একটি অংশ চায় যে কোনো মূল্যে খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং তাঁর পছন্দের ডাক্তার বা হাসপাতালে চিকিৎসা। চাউর হয়েছে, সে কারণে প্রধানমন্ত্রীর একজন উপদেষ্টার সঙ্গে বিএনপির ও খালেদা জিয়ার পরিবারের সদস্যের সঙ্গে একাধিক বৈঠক হয়েছে। বৈঠকটি অনেকটা সফলও বলে সূত্র জানিয়েছে।

গত রবিবার রাজশাহীতে এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বলেছেন, কোনো ধরনের আন্দোলনের মাধ্যমে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা যাবে না। খালেদা জিয়া আদালতে সাজা পেয়ে কারাগারে রয়েছেন। বিএনপি রাজপথে আন্দোলন করে তাকে মুক্ত করতে চায়। কিন্তু এখানে সরকারের কোনো হাত নেই, যা হবে আইনি প্রক্রিয়াতেই হবে। আন্দোলন করে কোনো লাভ নেই।

আইনি প্রক্রিয়ায় তাকে মুক্ত করতে হবে। গত সোমবার রাজধানীতে এক আলোচনা সভায় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, স্বাধীনতা দিবসে শপথ নিতে হবে, জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আন্দোলনের মধ্য দিয়ে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার। তাকে মুক্ত করলেই গণতন্ত্রকে মুক্ত করা হবে। আসুন আমাদের সব অঙ্গ-সংগঠনকে ঐক্যবদ্ধ করে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে দুর্বার আন্দোলনের মধ্য দিয়ে তাকে (খালেদা জিয়া) ও গণতন্ত্রকে মুক্ত করি।

জানা গেছে, গত ৮ ফেব্রুয়ারি কারাগারে যাওয়ার পরই খালেদা জিয়ার মুক্তি নিয়ে সরকারের সঙ্গে একটি সমঝোতার চেষ্টা চলছিল। কিছু শর্তে খালেদা জিয়ার মুক্তি নিয়ে আলোচনা এগিয়েও যাচ্ছিল বলে খবর ছড়াচ্ছিল। কিন্তু খালেদা জিয়া সব শর্ত মেনে না নেওয়ায় সমঝোতার সে চেষ্টা ভেস্তে যায়।
এ প্রসঙ্গে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও খালেদা জিয়ার আইনজীবী অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ‘বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া শারীরিকভাবে খুবই অসুস্থ। আদালত চাইলে তাকে জামিনে মুক্তি দিতে পারে। এরপর তিনি দেশে না বিদেশে চিকিৎসা নেবেন সেটা তার নিজস্ব ব্যাপার। তবে প্যারোলে মুক্তির বিষয়টি আমি কারও মুখে শুনিনি। সরকার যদি এমন কোনো প্রস্তাব দেয়, তাহলে বিএনপি নেত্রীর সম্মতি মিললে তারপর সরকারের সঙ্গে আলোচনা হবে।’ আওয়ামী লীগের আইন সম্পাদক গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শ. ম রেজাউল করিম বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ‘কোনো বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ কারণে কাউকে প্যারোলে মুক্ত করা যায়। যে কারণে প্যারোলে দেওয়া হয়, সেই কারণের সমাপ্তির সঙ্গে সঙ্গে প্যারোল প্রত্যাহার করা হয়।

যেমন কারও আপনজনের মৃত্যু ও তৎসক্রান্ত জানাজা বা ধর্মীয় কোনো অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণ। বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ক্ষেত্রে এ জাতীয় পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়নি। ফলে তাকে প্যারোলে যেতে হলে উপযুক্ত কারণ দেখিয়ে সরকারের নিকট আবেদন করতে হবে। সরকারের স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে তাকে প্যারোলে দেওয়ার কোনো আইনগত সুযোগ নেই।’ সূত্র: বাংলাদেশ প্রতিদিন

Print Friendly, PDF & Email

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
ওপরে