২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং ৬ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
চাঁদপুরে ইলিশের আমদানী বাড়লেও দাম না কমায় হতাশ ক্রেতারা আত্রাইয়ে পানিতে ডুবে মাদ্রাসা ছাত্রীর মৃ’ত্যু; ১৯... পাইকগাছায় ভুয়া ঠিকানা দিয়ে বিয়ে করে দুই লক্ষ টাকা... বাল্যবিবাহ-ই’ভটিজিং-স’ন্ত্রাস ও মা’দক প্রতিরোধে... বরগুনায় ৬ষ্ট শ্রেনীর মাদরাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টার ...

গণভবনে যা খেলেন ডাকসু নেতারা

 অনলাইন ডেস্ক। সমকালনিউজ২৪

প্রধানমন্ত্রীর আমন্ত্রণে গণভবনে গিয়েছে ডাকসু নেতারা। সেখানে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার পর তাদের জন্য নৈশভোজেরও আয়োজন করা হয়। গণভবনের সবুজ লনে তাদের খাওয়া ব্যবস্থা করা হয়। এর আগে বিকালে প্রথম তাদের বার্গার কেক ও পানি দেওয়া হয়।

বৈঠকের পর গণভবনের সবুজ লনে বুফে ডিনারের আয়োজন ছিল। নৈশভোজে ডাকসু নেতাদের বিরানি, খাসী, জালি কাবাব দেওয়া হয়। এছাড়ার ফিল মিষ্টি ফিরনি ও কোমল পানীয়। গণভবনে যাওয়া একাধিক ডাকসুদের নেতার সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য হানা গেছে।

এর আগে ডাকসু নেতাদের উদ্দেশে ভাষণ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, একসময় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোয় অস্ত্রের ঝনঝনানি ছিল। গুলি-বোমা ছিল প্রতিদিনকার ব্যাপার। এটা অত্যন্ত দুঃখজনক যে এক দলের নেতাকর্মীরা অন্য দলের নেতাকর্মীদের হত্যা করত। আমরা ক্ষমতায় এসে চিন্তা করলাম শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোয় অস্ত্রের প্রতিযোগিতা কেন থাকবে?

তিনি আরো বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান তো লেখাপড়ার জায়গা। ২০০৮ থেকে ২০১৮ এই দশ বছরে আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোয় অস্ত্রের ঝনঝনানি হয়নি।

শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপির আমল থেকে ডাকসু নির্বাচন বন্ধ ছিল। ডাকসু নির্বাচনটা চ্যালেঞ্জ ছিলো আমাদের জন্য। আমরা সেটা করতে পেরেছি।

তিনি আরো বলেন, খালেদা জিয়া ঘোষণা দিয়েছিল আওয়ামী লীগকে শিক্ষা দিতে ছাত্রদলই যথেষ্ট। আমি ছাত্রলীগের হাতে কলম তুলে দিয়ে জবাব দিয়েছিলাম, অসির থেকে মসীর জোর বেশি। সেটাই আমাদের প্রমাণ করতে হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো স্বাভাবিক পরিবেশ রক্ষার জন্য আমরা আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

কোটা সংস্কার আন্দোলনের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, কোটা আন্দোলন করছে, যুক্তি দিয়ে আন্দোলনের বিষয়টি বলতে হবে। কিন্তু ভিসির বাড়িতে আক্রমণ। তার বেডরুম পর্যন্ত ঢুকে যাওয়া, ভিসির গাড়িতে আগুন নেওয়া কখনোই গ্রহণযোগ্য নয়। আমাদের সময়েও ভিসির বাড়ির সামনে অবস্থান-ধর্মঘট করা হতো। খুব বেশি কিছু হলে ভিসির বাড়ির ফুলের টবই ভাঙা।

সেসময় ছাত্রী হলগুলোতে অস্থিতিশীলতার কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, ছাত্রীদের নিরাপত্তার কথা ভেবে রাতে ঘুমোতে পারিনি। যখন জেনেছি ছাত্রীরা নিরাপদে হলে ফিরে গেছে, তখন বিশ্রামে গিয়েছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা ভবিষ্যৎ নেতৃত্ব খুঁজি। আর ছাত্রজীবন থেকেই তা গড়ে তুলতে হবে। সেজন্য স্কুল পর্যায়ে ক্যাবিনেট চালু হয়েছে। কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ চর্চার পরিবেশ তৈরি হয়েছে। আগে রাজনীতির পরিবেশ এতো সুষ্ঠু ছিল না, এখন সুন্দর পরিবেশ ফিরে এসেছে। নেতৃত্ব তুলে আনতে এই ডাকসু নির্বাচনের আয়োজন করা হয়েছে।

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
Uncategorized বিভাগের সর্বশেষ
ওপরে