২২শে মে, ২০১৯ ইং ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
রংধনু শপিং লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক বাবলু ৫০ কোটি... চাঁদপুরের কৃতি সন্তান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জসিম... চাঁদপুরে কেরোসিনের আগুনে নববধূর মৃত্যু : আটক স্বামী। পত্নীতলায় মালঞ্চ কিন্ডার গার্টেন এন্ড হাইস্কুলের... আমতলীতে ধর্ষণ মামলার আসামী গ্রেফতার

চকরিয়ায় বিএনপি প্রার্থীর গাড়ি বহরে হামলা, আহত ৫

 অনলাইন ডেস্কঃ সমকাল নিউজ ২৪

কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনের বিএনপি মনোনীত ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী সাবেক সংসদ সদস্য এডভোকেট হাসিনা আহমেদের গাড়ি বহরে হামলা ও ভাঙচুর চালিয়েছে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। হামলায় বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের অন্তত ৫ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছে।

 

আজ শনিবার সকাল ১১টার দিকে ডুলাহাজারা কাটাখালী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন, চিরিংগা ইউনিয়নের এমইউপি আলী আহমদ (৪৫), ডুলাহাজারা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক এমইউপি মনজুর আলম (৫২), ছাত্রদল কর্মী আব্দুল মান্নান (২৯) ও বিএনপি নেতা মোহাম্মদ হারুনসহ (৩৪)। এদেরকে স্থানীয় হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

 

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, শনিবার সকাল ১১টার দিকে বিএনপির প্রার্থী হাসিনা আহমেদ ডুলাহাজারা ইউনিয়নের কাটাখালী গিয়ে নির্বাচনী গণসংযোগ করেন। গণসংযোগকালে আওয়ামী লীগ ক্যাডাররা তাদের ধাওয়া দেয়। প্রায় ৩টি গাড়ি ও ২টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করে তারা। ২টি মোটরসাইকেল ছিনিয়ে নেওয়া হয়।

 

চকরিয়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি মিজানুর রহমান খোকন মিয়া জানান, সকাল সাড়ে ১১টার দিকে বিএনপির প্রার্থী হাসিনা আহমেদ ডুলাহাজারা ইউনিয়নের কাটাখালী এলাকায় নির্বাচনী প্রচারণা চালান। এসময় একদল আওয়ামী লীগ ক্যাডার গাড়ি বহরে হামলা করে। পরে ডুলাহাজারা সাফারি পার্ক গেটের সামনে আরেক দফা হামলার শিকার হন হাসিনা আহমেদ ও সমর্থকরা।

 

এদিকে চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহেদুল ইসলাম লিটু বলেন, দীর্ঘদিন ধরে বিএনপি প্রার্থী এমপি থাকাকালে এলাকায় ছিলেন না। তেমনি এলাকার মানুষের খোঁজ-খবর রাখেনি। এ ছাড়া বিএনপির বেশ কিছু নেতাকর্মীদের চিংড়ি ঘের দিলেও এলাকার মানুষের কল্যাণে কোনো কাজ করেনি। এসব কারণে এলাকার সাধারণ মানুষ তাঁর ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে এ হামলা চালাতে পারে।

লিটু আরো বলন, চকরিয়া-পেকুয়ার মানুষ এখন ইতিবাচক রাজনীতি চায়। জ্বালাও-পোড়াও জনগণের পছন্দ নয়। সুন্দর ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে জীবন-যাপন জন্য সবাই চাই উন্নয়ন। বিএনপি জ্বালাও পোড়াও রাজনীতি করে, সেই দলকে মানুষ আর ভোট দেবে না। কোনো প্রার্থীর ওপর হামলা করা হয়নি এবং আওয়ামী লীগ এসব হামলা-মামলার রাজনীতি পছন্দ করেন না। আওয়ামী লীগের গণজোয়ার দেখে বিএনপি মিথ্যাচার শুরু করেছে।

 

বিএনপির মনোনীত (ঐক্যফ্রন্ট) প্রার্থী হাসিনা আহমেদ প্রেস বিফ্রিং করে সাংবাদিকদের বলেন, নির্বাচনী প্রচার চালানোর সময় পথে পথে বাধা সম্মুখীন হচ্ছি। চকরিয়া উপজেলায় আওয়ামী লীগ বিভিন্ন এলাকায় হামলা, ভয়ভীতি প্রদর্শন ও ভোটারদের হুমকিও দিচ্ছে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর নেতা-কর্মীরা।

 

প্রেস বিফ্রিংয়ে হাসিনা আহমেদ জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা, পুলিশ সুপারকে উদ্দেশ্য করে বলেন, তাঁকে হত্যার উদ্দেশ্যে এই হামলা চালানো হয়েছে। স্থানীয় লোকজন ও মহিলারা তাঁকে উদ্ধার না করলে যে কোন বড় ঘটনা ঘটতে পারতো। এভাবে যদি হামলা, ভাংচুর ও নেতা-কর্মীদের ভয়ভীতি ও মারধর করলে নির্বাচনী মাঠে প্রচারণা চালানো সম্ভব হবে না। এতে নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ ও লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরির স্বার্থে অবিলম্বে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ এবং হামলাকারিদের গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্ত মূলক শান্তির দাবি করছি।

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধূরী, বলেন, বিএনপি প্রার্থীর গাড়ি বহরে হামলা ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
ওপরে