৬ই জুন, ২০২০ ইং ২৩শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
চলতি মাসেই পোশাক শ্রমিক ছাঁটাই হবে : রুবানা হক বগুড়ায় সাংবাদিক অধ্যাপক মোজাম্মেল হকে’র মৃ’ত্যু সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রীর জন্য দোয়া চেয়েছেন মোহনপুর... ভারত সীমান্তে পারমাণবিক অ’স্ত্রের সমাবেশ চীনের! এমপি ফজলে করিমের ভাইয়ের মৃ’ত্যুতে তথ্যমন্ত্রীর শোক!

ছাতকের কৈতক হাসপাতালে ডাক্তার নেই, রোগীদের অার্তনাদ!

 শংকর দত্ত,ছাতক-সুনামগঞ্জ// সমকালনিউজ২৪

ছাতকের ২০ শয্যা হাসপাতাল কৈতকে চিকিৎসকের অভাবে চিকিৎসা সেবা নিতে আসা মানুষজন চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন।

ঘন্টার পর ঘন্টা লাইনে দাড়িয়েও চিকিৎসা সেবা নিতে পারেন নাই অনেকেই। সেবা না নিয়ে অনেকেই ফিরে যেতে দেখা গেছে। এতে চরম অসন্তোষ দেখা দিয়েছে হাসপাতালে আসা সেবা বঞ্চিতদের মধ্যে।

২৩ মে বৃহস্পতিবার, কৈতক হাসপাতালে গিয়ে জানা যায়, হাসপাতালে চিকিৎসক রয়েছেন ৩জন। এর মধ্যে মেডিকেল ইনচার্জ ডাঃ মোহাম্মদ মোজাহারুল ইসলাম সরকারী ট্রেনিং এ রয়েছেন ঢাকায়। ডাঃ মোঃ আবু সালেহীন খাঁনকে অনুপস্থিত পাওয়া যায়। কর্তব্যরত রয়েছেন ডাঃ সাইদুর রহমান।

৩জনের মধ্যে একজন ডাক্তার কর্মস্থলে দায়িত্ব পালনরত অবস্থায় থাকলেও আগত শিশু, মহিলা ও পুরুষ রুগিদের চিকিৎসা সেবা দিতে হিমসিম খাচ্ছেন। ওয়ার্ডে ভর্তিরত রুগিরা সেবিকা ছাড়া দায়িত্বরত চিকিৎসকের দেখা পান নাই বলে রুগির স্বজনরা জানান।
ছাতকের হলদিউরা গ্রামের লেচু বেগম ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, হাসপাতালে গিয়ে সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত বসেও ডাক্তার দেখাতে না ফেরে বাড়ি ফিরে আসতে হয়েছে। শত শত রোগী আর ডাক্তার একজন, যার কারণে অনেক রোগীই হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা না নিয়ে ফিরতে হয়েছে বলে তিনি জানান।

কৈতক হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত ইনচার্জ ডাঃ সাইদুর রহমান জানান, চিকিৎসক ৩জনের মধ্যে শুধু তিনিই কর্মস্থলে আছেন। মেডিকেলের ইনচার্জ ডাঃ মোহাম্মদ মোজাহারুল ইসলাম সরকারি প্রশিক্ষণে ঢাকায় রয়েছেন। আর ডাক্তার আবু সালেহীন খাঁন বুধবার থেকে কর্মস্থলে অনুপস্থিত। সালেহীন খাঁন ছুটিতে আছেন কিনা তিনি জানেন না।

তিনি অারো বলেন, লিখিত কিংবা মৌখিক ছুটির বিষয়ে তিনি অবগত নন।

এব্যাপারে মেডিকেল অফিসার ডাক্তার আবু সালেহীন খাঁনের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ছুটিতে রয়েছেন। অার ভারপ্রাপ্ত ইনচার্জ বলছেন ডাক্তার সালেহীন অনুপস্থিত। ছুটির বিষয়ে তিনি অবগত নন।

ডাক্তার মোহাম্মদ মোজাহারুল ইসলামের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে বলেন, তিনি সরকারী ট্রেনিংএ ঢাকায় রয়েছেন। ডাক্তার সালেহীন খানের ছুটির বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান, বাৎসরিক ২০ দিন নিমিত্তিক ছুটি পাওয়ার কথা থাকলেও ইতিমধ্যে তিনি ২৫ দিন ছুটি কাটিয়েছেন। ২৫ দিন নৈমিত্তিক ছুটি কাটিয়েছেন মর্মে গত ৮ ই মে ২০১৯ ইং তারিখে তাকে নোটিশ করা হয়েছে।

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
সুনামগঞ্জ বিভাগের সর্বশেষ
সুনামগঞ্জ বিভাগের আলোচিত
ওপরে