৬ই জুলাই, ২০২০ ইং ২২শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
কাগজের ফুল বিক্রি করে সংসার চলে সোবাহানের মাদ্রিদে কর্মহীন প্রবাসীদের জন্য ভালিয়েন্তে বাংলার... আত্রাইয়ে পৃথক অভিযানে মা’দক ব্যবসায়ী ও ১০ জুয়াড়ি আটক ঈদে শ্রমীকদের বেতন-ভাতা দিয়ে পর্যায়ক্রমে ছুটি দিন কালাইয়ে গাঁ’জাসহ দুই মা’দক ব্যবসায়ী আটক

ছেলেকে জীবন্ত আ’গুনে পুড়িয়ে মারলেন বাবা-মা

  সমকালনিউজ২৪

প্রাপ্তবয়স্ক ছেলে নিয়মিত নে’শা করেন। আর ম’দের টাকার জন্য পরিবারের সবার ওপর প্রচণ্ড অ’ত্যাচার করতেন ৪২ বছর বয়সী ওই ছেলে। তার অ’ত্যাচারে দিনে দিনে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছিলেন মা-বাবা। শেষে আর সইতে না পেরে ছেলেকে বেঁধে জীবন্ত আ’গুনে পুড়িয়ে হ’ত্যা করেছেন তারা। মঙ্গলবার রাতে ভারতের তেলঙ্গানা রাজ্যের বরাঙ্গল জেলায় এই মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটে।পুলিশের বরাত দিয়ে স্থানীয় এক সংবাদ মাধ্যম জানায়, মৃতের নাম কে মহেশ চন্দ্র (৪২)। তিনি বরঙ্গল গেলায় এগ্রিকালচার মার্কেটের কেরানি হিসাবে কাজ করতেন। ছেলেকে খু’নের অ’ভিযোগে ওই দম্পতিকে গ্রে’প্তার করেছে পুলিশ।

‘জানা যায়, হায়দ্রাবাদ থেকে প্রায় দু’শো কিলোমিটার দূরে মুস্থায়ালাপল্লি গ্রামের বাসিন্দা কে প্রভাকর এবং বিমলা। তাদের ছেলে মহেশ নি’য়মিত নেশা করতেন। মদ খেয়ে মাতাল অবস্থায় বাড়ি ফিরে বাবা-মায়ের ওপর শুরু করতেন অ’ত্যাচার। আর ম’দ খাওয়ার টাকা চেয়ে প্রতিদিনই নানা অশান্তি করতেন। এমনকি বাবা-মায়ের গায়ে হাত তুলতেও দ্বিধা করতেন না।

কেবল বাবা-মা নয়, নিজের স্ত্রীকেও রেহাই দিতেন না মহেশ। স্বামীর অ’ত্যাচার সইতে না পেরে মাস দু’য়েক আগেই বাপের বাড়িতে চলে যান তার বউ। তার পর থেকে বাবা-মায়ের ওপর মহেশের অ’ত্যাচারের মাত্রা আরও বেড়ে যায়।

মঙ্গলবার রাতে মাতাল অবস্থায় বাড়ি ফেরার পর মা-বাবার সঙ্গে ঝামেলা শুরু করেন। এক পর্যায়ে তাদের পেটাতে থাকে। ছেলের নি’র্যাতন সহ্য করতে না পেরে দুজনে মিলে মহেশকে দড়ি দিয়ে বেঁধে ফেলে। তারপর তার গায়ে কেরোসিন ঢেলে আ’গুন ধরিয়ে দেন। এতে ঘটনাস্থলেই মা’রা যান মহেশ।

পরে ম’হেশের ম’রদেহ উ’দ্ধার করে ম’য়নাতদন্তের জন্য পাঠায়ে পুলিশ। এ ঘটনায় মহেশের মা-বাবাকে গ্রে’প্তার করা হয়েছে। তাদের বি’রুদ্ধে হ’ত্যা মা’মলা দায়ের করেছে পু’লিশ।

সূত্র: আনন্দবাজার

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
ওপরে