২৫শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং ১২ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
অবশেষে শপথ নিলেন আমতলী উপজেলা চেয়ারম্যান ফোরকান বরগুনায় নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধে মানববন্ধন মঠবাড়িয়ায় পাঁচ বছরের শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে... মধ্যরাতে বন্ধ হচ্ছে ২২ লাখ ৩০ হাজার সিম প্রকাশ্যে চাঁদাবাজিকালে পিস্তল ও এলজিসহ প্রসীত পন্থি ২...

টিউবওয়েল বিতরণ নিয়ে দ্বন্ধ গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে ইউপি চেয়ারম্যান-মেম্বারদের মধ্যে মারামারি, আহত ৪

 এম শিমুল খান, গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি। সমকাল নিউজ ২৪

গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানী উপজেলায় চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের মধ্যে মারামারি ঘটনা ঘটেছে। বুধবার উপজেলার রাজপাট ইউনিয়ন পরিষদে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় চার ইউপি সদস্য আহত হয়েছেন। মারধরের অভিযোগ এনে চেয়ারম্যান ইউপি সদস্যদের বিরুদ্ধে কাশিয়ানী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন।

 

জানা গেছে, বুধবার কাশিয়ানী উপজেলার ৯নম্বর রাজপাট ইউনিয়ন পরিষদে দুস্থ মাতাদের মাঝে ভিজিডি কার্ডের চাল বিতরণের কাজ চলছিল। এ সময়ে রাজপাট ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যরা (মেম্বাররা) চেয়ারম্যান এম ডি মনিরুল আলম খানের রুমে যায়। তারা চেয়ারম্যানের কাছে জানতে চায় রাজপাট ইউনিয়নে কয়টি গভীর নলকূপ বরাদ্ধ হয়েছে। এ নিয়ে চেয়ারম্যান ও মেম্বরদের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে। এ সময় চেয়ারম্যান প্রায় দুই ঘণ্টা নিজের রুমে অবরুদ্ধ থাকেন।

 

রাজপাট ইউনিয়নের মেম্বর মো: মহসিন শিকদার ও বাদল মোল্লা জানান, আমরা ১০ জন মেম্বার একযোগে চেয়ারম্যানের রুমে গিয়ে জানতে চাই আমাদের ইউনিয়নে কয়টি গভীর নলকুপ সরকারী ভাবে বরাদ্ধ হয়েছে। চেয়ারম্যান এম ডি মনিরুল আলম খান ক্ষিপ্ত হয়ে আমাদের ওপর চড়াও হয়ে মেম্বার মো: মহসিন শিকদারকে চড়-থাপড় মারে। আমরা ১০ জন মেম্বার পরিষদের সামনের চায়ের দোকানে বসে পরামর্শ করছিলাম। এমন সময়ে চেয়ারম্যানের গ্রামের ১০/১২ জন লোক ভ্যানযোগে আমাদের সামনে নেমেই এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করে। এ সময়ে ইউনিয়ন পরিষদের ৬নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বর মো: বাদল মোল্লা, ৭ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বর মো: মহসিন শিকদার, সংরক্ষিত ২ নম্বর আসনের মেম্বার সাবিনা ইয়াসমিন এবং সংরক্ষিত ৩ নম্বর আসনের মেম্বর মনিকা বিশ্বাস আহত অবস্থায় কাশিয়ানী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। কাশিয়ানী থানা থেকে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। হাসপাতালের জরুরি বিভাগের ডাক্তার মো: আরিফুল ইসলাম আহতদের হাসপাতালে ভর্তি কথা নিশ্চিত করেছেন।

 

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার রাজপাট ইউনিয়নে ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের জন্য জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী অধিদপ্তর কর্তৃক ২৪টি ডিপ টিউবওয়েল বরাদ্ধ দেয়া হয়েছে। ইউপি চেয়ারম্যান এম ডি মনিরুল আলম টিউবওয়েল গুলো তার ভাবাপন্ন দু’জন মেম্বারদের মাঝে বন্টন করেছেন। এ নিয়ে চেয়ারম্যানের সাথে বাকি ইউপি সদস্যদের দ্বন্ধ দেখা দেয়। বুধবার ৪ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মামুন মোল্লা ও ৭ নং ওয়ার্ডের সদস্য মহসিন সিকদারসহ কয়েকজন সদস্য বিষয়টি চেয়ারম্যানের কাছে শুনতে ইউনিয়ন পরিষদে গেলে চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও মারামারির ঘটনা ঘটে।

 

এ ব্যাপারে ৯ নম্বর রাজপাট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এম ডি মনিরুল আলম খান জানান, মেম্বররা আমার ওপর হামলা ও মারধর শুরু করলে আমি আমার রুমের দরজা ভিতর থেকে বন্ধ করে নিজে আত্মরক্ষা করি। পরে চৌকিদাররা ও স্থানীয় লোকজন আসলে আমি নিজের রুমের দরজা খুলে বের হই। বাইরে মেম্বারদের কে বা কাহারা মারধর করেছে সেটা আমার জানা নাই।

 

এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য মহাসিন সিকদার চেয়ারম্যানকে মারধরে কথা অস্বীকার করে বলেন, চেয়ারম্যান আমাদের ১০ মেম্বারদের ডিপ টিউবওয়েল বরাদ্ধ না দিয়ে অর্থ আত্মসাত করেছেন। আমরা কয়েকজন মেম্বার মিলে বিষয়টি শুনতে পরিষদে গেলে চেয়ারম্যান আমাকে মারধর করে।

 

এ ব্যাপারে কাশিয়ানী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ এস এম মাঈন উদ্দিন বলেন, আমি মোবাইলে বিষয়টি জানতে পেরেছি ঘটনাটি দুই ইউপি সদস্য ঘটিয়েছে। তবে তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
গোপালগঞ্জ বিভাগের সর্বশেষ
গোপালগঞ্জ বিভাগের আলোচিত
ওপরে