২৩শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং ১০ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
সেফুদার বিরুদ্ধে ভিয়েনার আদালতে মামলা শ্রীলঙ্কা হামলার ‘মাস্টার মাইন্ড’ মাওলানা জাহরান... বগুড়ায় মদসহ তিন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার বগুড়ায় ছিনতাইচক্রের মূল হোতা আটক প্রেম বাড়াতে আসছে ‘ইনজেকশন’

দেশে ফিরতে চায় আইএসের বাংলাদেশি জঙ্গিরা

 অনলাইন ডেস্কঃ সমকাল নিউজ ২৪
দেশে ফিরতে চায় আইএসের বাংলাদেশি জঙ্গিরা

সিরিয়ায় জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট বা আইএসের পতনের পর সেখানে যাওয়া বাংলাদেশি জঙ্গিরা দেশে ফেরার চেষ্টা করছে। এমন তথ্য পেয়েছে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট। এরইমধ্যে বিমানবন্দর, স্থলবন্দরসহ দেশের সব প্রবেশপথে জারি করা হয়েছে সতর্কতা। দেশে ফেরার চেষ্টা করলেই জঙ্গিদের গ্রেপ্তার করা হবে বলে জানিয়েছেন কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট প্রধান মনিরুল ইসলাম।

সম্প্রতি সিরিয়ার বাঘুজে সর্বশেষ ঘাঁটিটিও হারিয়েছে আইএস। মার্কিন সমর্থিত সিরিয়ান ডেমোক্রেটিফ ফোর্সের হাতে বন্দি হয়েছে জঙ্গিগোষ্ঠীটির আটশ বিদেশি জঙ্গি। তাদের নিজ নিজ দেশে নিয়ে বিচারের মুখোমুখি করার আহবান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। ধারণা করা হচ্ছে, এসব বন্দির মধ্যে চার-পাঁচজন বাংলাদেশি থাকতে পারেন।

সিরিয়ায় আইএসে যোগ দেয়া বাংলাদেশির সংখ্যা ৪০ জনের মত। তাদের অর্ধেকই মারা গেছেন বলে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের ধারণা। বাকিদের মধ্যে দেশে ফেরার চেষ্টা করছেন দুই ভাই ইব্রাহিম হাসান খান ও জুনায়েদ হাসান খান, চিকিৎসক রোকনউদ্দিন, তার স্ত্রী নাইমা আক্তার, মেয়ে রমিতা, রেজওয়ানা ও জামাতা সাদ কায়েস, দন্তচিকিৎসক আরাফাত রহমান তুষারসহ আরো কয়েকজন।

কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশি কেউ যদি সেখানে গিয়ে থাকেন কিংবা বাংলাদেশ বা দুই দেশের নাগরিক হিসেবে যারা আইএসে যোগ দিয়েছে, তারা হয়ত সিরিয়া গিয়ে সে দেশের নাগরিকত্ব গ্রহন করেছে। কিন্তু আটক হওয়ার ফলে তাদের সেই পাসপোর্ট বাতিল হয়ে গেছে। তাই আইএসে যোগ দেয়া বাংলাদেশি জঙ্গিরা বাংলাদেশে ঢুকার চেষ্টা করতে পারে।

দেশে ফিরলেই আইএস জঙ্গিদের গ্রেপ্তার করতে বিমানবন্দরসহ সব প্রবেশপথে জারি করা হয়েছে সতর্কতা। আগেই তাদের সম্পর্কে ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় সব তথ্য দিয়ে রেখেছে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট।

এ বিষয়ে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট প্রধান মনিরুল ইসলাম বলেন, যাদের সম্পর্কে আমাদের কাছে তথ্য রয়েছে, আমরা ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় সব তথ্য দিয়েছি। এছাড়া আমাদের গোয়েন্দা সংস্থাগুলোও নজরদারি রেখেছি। আমি আশা করছি এসব জঙ্গিরা এদেশে ঢোকা মাত্রই তাদের গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনতে সক্ষম হবো।

সিরিয়ায় যাওয়ার পরপরই বিদেশি যোদ্ধাদের কাছ থেকে পাসপোর্ট নিয়ে নেয় আইএস। তাই দেশে ফিরতে ট্রাভেল ডকুমেন্ট যোগাড় করতে তুরস্ক দূতাবাসে যোগাযোগ করতে পারেন বাংলাদেশি জঙ্গিরা। এজন্য দূতাবাসকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলেছে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট।

Print Friendly, PDF & Email

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
ওপরে