২২শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং ৭ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
বগুড়ায় বিশ্ব নদী রক্ষা দিবস পালিত চাঁদপুরে ইলিশের আমদানী বাড়লেও দাম না কমায় হতাশ ক্রেতারা আত্রাইয়ে পানিতে ডুবে মাদ্রাসা ছাত্রীর মৃ’ত্যু; ১৯... পাইকগাছায় ভুয়া ঠিকানা দিয়ে বিয়ে করে দুই লক্ষ টাকা... বাল্যবিবাহ-ই’ভটিজিং-স’ন্ত্রাস ও মা’দক প্রতিরোধে...

নারী সাংবাদিককে ধর্ষণের বিষয়ে মুখ খুললেন ট্রাম্প

 অনলাইন ডেস্ক সমকালনিউজ২৪

নির্বাচনের আগে ফের নতুন করে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে। ই ডেন ক্যারোল (৭৫) নামে এক মার্কিন সাংবাদিক সম্প্রতি দাবি করেছেন, নিউইয়র্কের একটি ডিপার্টমেন্টাল স্টোরের ড্রেসিং রুমে ট্রাম্প তাকে ধর্ষণ করেন। তবে পুরো বিষয়টিকে বানোয়াট ও লাইম লাইটে আসার পন্থা বলে দাবি করেছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, টিভি উপস্থাপনা ও লেখক ই ডেন ক্যারোল যুক্তরাষ্ট্রের মিডিয়ায় পরিচিত মুখ। নিজের ‘হোয়াট ডু উই নিড ফর ম্যান’ বইয়ে ২৩ বছর আগে ১৯৯৬ সালে ট্রাম্পের সঙ্গে ঘটা ঘটনার পুরো বর্ণনা দিয়েছেন। ক্যারোল জানান, নিউ ইয়র্কের বার্কড্রপ গুডম্যান স্টোরে তাদের দেখা হয়। পরিচয় বিনিময়ের পর এক পর্যায়ে ট্রাম্প ক্যারোলকে ড্রেসিং রুমে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন।

এ নিয়ে মোট ১৬ জন নারী যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান প্রেসিডেন্টের ওপর যৌন হয়রানির অভিযোগ তুললেন। গতকাল শুক্রবার নিউ ইয়র্ক ম্যাগাজিনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ক্যারোল জানান, বিষয়টি নিয়ে তিনি পুলিশের কাছে মামলা করতে যাননি। কেবল দুজন ঘনিষ্ঠ বন্ধুদের জানিয়েছিলেন।

তবে ডিপার্টমেন্টাল স্টোরের কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, তাদের কাছে এত পুরোনো সিকিউরিটি ফুটেজ নেই।

এ বিষয়ে ট্রাম্প জানান, ক্যারোলের সঙ্গে কখনো তার সাক্ষাৎ হয়নি। বইয়ের কাটতি বাড়াতে ক্যারোল এসব গল্প লিখেছেন। তিনি বলেন, ‘ডেমোক্র্যাটিক পার্টি কিংবা নিউ ইয়র্ক ম্যাগাজিনের কেউ যদি ক্যারোলের সঙ্গে কোনোভাবে সংযুক্ত আছেন এমন তথ্য পান তাহলে আমাদের যতদ্রুত সম্ভব জানান। বিশ্বের জানা দরকার আসলে কি হচ্ছে! এতে মর্যাদাহানি হচ্ছে এবং যারা এই মিথ্যা অভিযোগের পেছনে দায়ী রয়েছে তাদের এর ফল ভোগ করতে হবে।’

২০১৬ সালে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারণার সময় ট্রাম্পের একটি ব্যক্তিগত ফুটেজ ভাইরাল হয়। যেখানে তাকে বলতে শোনা গেছে, ‘আমি চাইলেই যেকোনো নারীর স্পর্শকাতর জায়গায় স্পর্শ করতে পারবো। কেননা আমি জনপ্রিয়।’

ট্রাম্পের এমন অশ্লীল বক্তব্যের পর নারীরা তার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ তোলেন। যদিও পরে নিজের ওই বক্তব্যের জন্য ক্ষমা চান প্রেসিডেন্ট। কিন্তু ধর্ষণের একাধিক অভিযোগ অস্বীকার করে উড়িয়ে দেন তিনি।

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
আন্তর্জাতিক বিভাগের আলোচিত
ওপরে