১৬ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং ১লা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
ঝালকাঠিতে ৫ম শ্রেনীর ছাত্রীকে যৌ’ন নিপড়ন, দিনে থানায়... স্ত্রীর মর্যাদা না পেয়ে স্বামীর বাড়িতে কাবিননামা... জয়নগর ইউনিয়ন আওয়ামিলীগের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিলের... নওগাঁয় হাসপাতাল থেকে চুরি যাওয়া শিশু ১১দিন পর উ’দ্ধার আবরার হ’ত্যার ন্যয়বিচারের দাবীতে চাঁদপুরে মানববন্ধন...

নড়াইলে বাবা ছাড়া ফুটফুটে কন্যা সন্তানের মা হয়েছে পাগলীকে: দেখতে সদর হাসপাতলে ডিসি ও এসপি।

 উজ্জ্বল রায়, নড়াইল জেলা প্রতিনিধি। সমকালনিউজ২৪

নড়াইলের শেখ হাটি ইউনিয়নের হাতিয়াড়া গ্রামের সিমা পাগলী (২২) একটি ফুটফুটে কন্য সন্তানের মা হয়েছে। কিন্তু এই সন্তানের বাবা কে? সেটি এখনও বলতে পারছেনা কেউ! সিমা বর্তমানে এই নবজাতককে নিয়ে নড়াইল সদর হাসপাতলে ভর্তি আছে। আমাদের নড়াইল জেলা প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায় জানান,বুধবার (৯ জানুয়ারি) নড়াইল সদর হাসপাতলে একটি কন্য সন্তানের জন্ম দেন সিমা নামে এই পাগলীটা। সকালে ওই গ্রামের এক মহিলা নড়াইল সদর হাসপাতলে সিমাকে ভর্তি করে রেখে চলে যান।

 

হাসপাতল সুত্রে জানা গেছে, সিমাকে ভর্তি করার পর থেকে সে প্রসাব যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছিল। চিকিৎসা শুরু করার কিছু সময়ের মধ্যে একটি কন্য সন্তান এর জন্ম (নরমাল ডেলিভারি) হয়। শিশুটি দেখতে অনেক সুন্দর হয়েছে, শিশু এবং শিশুর মা এখন ভাল আছে। নাম প্রকাশ না করা শর্তে স্থানীয় একাধিক ব্যক্তি জানান, সিমার এখনও বিবাহ হয়নি। এলাকার মানুষ তাকে সিমা পাগলী নামে চেনে। এলাকার বখাটে যুবকেরা এ ধরনের নেক্কারজনক কাজ করতে পারে বলে স্থানীয়দের ধারণা। শেখহাটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তাপস কুমার পাঠক জানান, সিমার মামা বাড়ি নড়াইলের সীমান্তবর্তী এলাকা শেখহাটি ইউনিয়নের হাতিয়াড়ায়। সিমা যখন ছোট তখন তার মা ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। তখন থেকেই সিমা মামার বাড়িতে থাকতো। তার (সিমার) বয়স যখন ১০-১২ বছর তখন এলাকার মানুষ জানতে পারে সে পাগল। ছোট বেলা থেকেই সিমা মানুষের বাড়িতে বাড়িতে, রাস্তা ঘাটে, বাজারে এখানে সেখানে ঘুরে বেড়াতো এবং রাত কাটাতো। এলাকার মানুষ তাকে খাবার দিলে খেত।

 

জেলা প্রশাসক আঞ্জুমান আরা বেগম ও নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিমউদ্দিন (পিপিএম), আমাদের নড়াইল জেলা প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায় জানান,একটি পাগলী নড়াইল সদর হাসপাতালে কন্যা সন্তানের জন্ম দিয়েছেন এমন খবর শুনার সাথে সাথে নবজাতক এবং তার মাকে দেখতে হাসপাতালে গিয়েছি। সেখানে যেয়ে তাদের অবস্থার খোজ-খবর নিয়েছি। রক্তের প্রয়োজনে এক পুলিশ সদস্য এক ব্যাগ রক্ত দিয়েছে। এই নবজাতকের বাবা কে সেটা এখনও জানা যায়নি।

 

বিষয়টি পুলিশ তদন্ত করে ব্যবস্থা নিবে।

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
নড়াইল বিভাগের সর্বশেষ
নড়াইল বিভাগের আলোচিত
ওপরে