২০শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং ৫ই কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
মেডিকেলে ভর্তির সুযোগ পেল আমতলীর মাহেন্দ্র চালকের মেয়ে... ঝালকাঠিতে শিক্ষার্থীদের রাতের আড্ডা বন্ধে পুলিশ... সাতক্ষীরা সদর উপজেলা কমিটি বিলুপ্তি ঘোষনা ও সভাপতি... মাদ্রিদে বৃহত্তর ঢাকা এসোসিয়েশন ইন স্পেনের এক সভা... ঝালকাঠিতে ইলিশ নিধন অ’পরাধে তিন জেলেকে কা’রাদ’ন্ড

পরিস্থিতি সামলাতে না পেরে ক্যাম্পাস বন্ধের সিদ্ধান্ত হাবিপ্রবির

  সমকালনিউজ২৪

সোহানুর শুভ,হাবিপ্রবি প্রতিনিধিঃ 

দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে হাবিপ্রবি প্রশাসন। সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ঢাকাস্থ লিয়াজোঁ অফিসে রিজেন্ট বোর্ডের ৪৪ তম জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়টির ওয়েবসাইটে দেয়া এক নোটিশে বলা হয়েছে, উদ্ভুত পরিস্থিতির প্রেক্ষিতে পূর্ব নির্ধারিত শীতকালীন ছুটি পূনঃবিন্যাস করে ০৪-১২-২০১৮ খ্রীস্টাব্দ থেকে  ০৩-০১-২০১৯ খ্রীস্টাব্দ পর্যন্ত নির্ধারণ করা হল। বিজ্ঞপ্তিতে ৪ তারিখ দুপুর ১২ টার মাঝেই হল ত্যাগ করার নির্দেশ দেয়া হয়।

উল্লেখ্য, শিক্ষকদের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি ও শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে মুখ থুবড়ে পরেছে হাবিপ্রবির শিক্ষা ও প্রশাসনিক কার্যক্রম। এমনটি ২০১৮-১৯ সেশনের ভর্তি পরীক্ষা অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ে বেতন বৈষম্যের অবসান, ইক্রিমেন্টের সুবিধা বহাল এবং একজন নারী শিক্ষিকাসহ সহকর্মী লাঞ্ছনার ঘটনায় জড়িত রেজিষ্টার , প্রক্টর এবং ছাত্র পরামর্শ বিভাগের পরিচালককে বহিষ্কারের দাবীতে ১৫ নভেম্বর থেকে ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জন করে প্রতীকি অনশন কর্মসূচি পালন করছে সদ্য পদোন্নতি পাওয়া ৫৭ জন সহকারি অধ্যাপক পদ মর্যাদার শিক্ষক। এই আন্দোলনকারী শিক্ষাকদের দ্বারা রেজিস্টারকে লাঞ্চিত ও গায়ে হাত দেয়ার অভিযোগে দুই শিক্ষককে বহিস্কার করে হাবিপ্রবি প্রশাসন। কিন্তু এই অভিযোগ প্রামাণ না করেই এরকম সিদ্ধান্ত নেয়ায় সাধারণ শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে ভাইস চ্যান্সেলরকে টানা ৪ ঘন্টা অবরুদ্ধ করে রাখা হয়। পরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশের সহায়তায় মুক্ত হয় ভাইস চ্যান্সেলর।

ফোনালাপে বিশ্ববিদ্যালয়টির রেজিস্টার প্রফেসর ড. মোঃ সফিউল আলম বিষটি নিশ্চিত করে বলেন ” ক্যাম্পাসের উদ্ভুত পরিবেশ ও সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে রিজেন্ট বোর্ডে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।মূলত শীতকালীন ছুটি পরিমার্জিত করে ৩ জানুয়ারি পর্যন্ত ক্যাম্পাস বন্ধ থাকবে। ” কিন্তু জরুরি হল ত্যাগের নির্দেশের পিছনে কি কারণ তা জনতে চাওয়া হলে এ বিষয়ে কিছু বলার নেই বলে জানান তিনি।

অপরপক্ষে অধিকাংশ শিক্ষার্থী মনে করছে, উদ্ভুত পরিবেশ সামাল দিতে ব্যর্থ প্রশাসন। তাই এ ধরনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। এতে করে সেশনজোট সহ শিক্ষা কার্যক্রম অনিশ্চিত হবে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেন তারা।

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
ওপরে