২৬শে মে, ২০১৯ ইং ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
সাজাপ্রাপ্ত আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে বেনাপোল পোর্ট... ফেসবুকের কাছে ১৯৫টি অ্যাকাউন্টের তথ্য চেয়েছে সরকার সদরঘাট জিম্মি ‘খলিফা বাহিনী’র হাতে কৃষকের ঘরে বিয়ের ১১ বছর পর এক সঙ্গে চার সন্তান বাংলাদেশীদের পদচারণায় জমজমাট কলকাতার ঈদ বাজার!

পাইকগাছায় ফারিন হসপিটাল ও শাপলা ক্লিনিক আবারও বন্ধ ঘোষণা।

 ইমদাদুল হক,পাইকগাছা,খুলনা।। সমকাল নিউজ ২৪

পাইকগাছায় শাপলা ক্লিনিক ও ফারিন হসপিটালে রোগী মৃত্যুর সংবাদের প্রেক্ষিতে জেলা সিভিল সার্জন পরবর্তি নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত ক্লিনিক দুটি সামগ্রিক কার্যক্রম স্থগিত ঘোষণা করেন।

জেলা সিভিল সার্জন ডা. আব্দুর রাজ্জাক গত ৫মার্চ সরেজমিন শাপলা ক্লিনিক পরিদর্শন ও রোগীর মৃত্যুর ঘটনা তদন্ত করেন। ৫ মার্চ পরিদর্শনকালীন পৌর সদরের ফারিন হসপিটালে দায়ীত দ্বারা প্রসুতির ডেলিভারী করতে গিয়ে বাচ্চা মারা যায়। এ সময় জেলা সিভিল সার্জন ফারিন হসপিটালও পরিদর্শন করে। পৌর সদরের তদন্ত শেষে তিনি আবারও ফারিন হসপিটাল ও শাপলা ক্লিনিক বন্ধ রাখার মৌখিক নির্দেশ দিয়ে খুলনায় ফিরে যান। তবে শাপলা ক্লিনিকের কার্যক্রম এর পর আরো দুই দিন চালু রাখা হয়। লিখিত নির্দেশ পাবার পর শুক্রবার থেকে ক্লিনিকের কার্যক্রম বন্ধ মর্মে সাইনবোর্ড ঝুলানো হয়েছে।

এদিকে শাপলা ক্লিনিক যে বন্ধ হয়েছে তা শুনে এলাকাবাসির মাঝে স্বস্তির নিঃশ্বাস পড়লেও আবার কবে চালু হবে তা নিয়েও চলছে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা। কেননা গত বছর একইভাবে বন্ধ হবার পর অল্প কিছু দিন পরই ফের স্বমহিমায় চালু করা হয় মৃত্যুকূপক্ষ্যাত শাপলা ক্লিনিক। এ জন্য এবারও মানুষজন বলাবলি করছে বেশিদিন বন্ধ রাখা যাবেনা শাপলা ক্লিনিক, উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে কিভাবে ম্যানেজ করে ক্লিনিক চালু করতে হয় সে কৌশল ভালোই যানে শাপলা ক্লিনিকের সত্বাধীকারী তাপস মিস্ত্রী।

উল্লেখ্য, পৌর সদরের পেট্রোল পাম্প সংলগ্ন “শাপলা ক্লিনিকে” অপচিকিৎসায় সম্প্রতি এক সপ্তাহের ব্যবধানে তিন নবজাতকসহ ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে খবর পাওয়া যায়। ক্লিনিকের সত্বাধীকারী তাপস মিস্ত্রী নিজেই ডেলিভারী করার কারণে মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে এবং রোগীর মৃত্যু বা অবস্থা খারাপ হতে থাকলেই দ্রুত পাঠিয়ে দেয়া হয় খুলনায়। শাপলা ক্লিনিক থেকে খুলনায় বা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রেরণের পর সেই রোগীর বেঁচে থাকার নজির খুবই কম, হয়তোবা নেই।

এদিকে অভিযোগ রয়েছে, শাপলা ক্লিনিকে রোগীর মৃত্যুর ঘটনা ঘটলেই চলে টাকার ছড়াছড়ি। এক শ্রেণির দুস্কৃতকারী ওৎ পেতে থাকে কবে শাপলা ক্লিনিকে অঘটন ঘটে। ওদিকে পৌর শহর তো বটেই উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলেও ন্যুনতম আইন-নিয়োম-কানুন না মেনেই অসংখ্য ক্লিনিক গড়ে উঠেছে।

এসব ক্লিনিক নামের কসাইখানাতেও সংশ্লিষ্ট উর্ধতন কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সতেচনমহল।

Print Friendly, PDF & Email

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
খুলনা বিভাগের আলোচিত
ওপরে