২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং ৯ই ফাল্গুন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
বরিশাল শেবাচিমে ময়লার স্তূপে মিললো ২২ অপরিণত শিশুর... স্বামীর লাশ ওয়ারড্রবে রেখে অফিস করলেন স্ত্রী! ঐক্যফ্রন্টকে গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর দাওয়াত চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ করার দাবিতে মানববন্ধন বন্য হাতির আক্রমণে নিহত জাসদ নেতা সাইমুন কনক

পারমাণবিক কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে উ. কোরিয়া

  সমকাল নিউজ ২৪
পারমাণবিক কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে উ. কোরিয়া

উত্তর কোরিয়া আগের মতই পারমাণবিক ও ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে। এখন দেশটি তাদের এসব অস্ত্র সামরিক হামলায়ও যেন সুরক্ষিত থাকে, তা নিশ্চিত করতে কাজ করছে। এমনই তথ্য উঠে এসেছে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের অনুমোদন কমিটির গোপনীয় প্রতিবেদনে। খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের ওই খবরে বলা হয়েছে জাতিসংঘের ১৫ সদস্যর ওই কমিটির প্রতিবেদন তারা দেখেছে।

কিছুদিন পরেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও দক্ষিণ কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের দ্বিতীয় সম্মেলনে বসার কথা। প্রভাবশালী দুই নেতার দ্বিতীয় সম্মেলনের  আগে ওই প্রতিবেদনের কথা জানা গেল।

এর আগে ২০১৮ সালের জুন মাসে ট্রাম্প ও কিমের প্রথম বৈঠকের পর পুরোপুরি পারমাণবিক কর্মসূচি থেকে সরে আসার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন উত্তর কোরিয়ার নেতা।

ট্রাম্প বলছেন, উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে চুক্তির বিষয়ে তাদের দারুণ অগ্রগতি হয়েছে। তবে জাতিসংঘের ওই প্রতিবেদনে পুরোপুরি উল্টো বিষয়টি দেখা গেছে। ওই প্রতিবেদনে পিয়ংইয়ংয়ের বিরুদ্ধে বিমানবন্দরসহ বেসামরিক স্থাপনা ব্যবহার করে দূরপাল্লার আন্তমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র সংযোজন ও পরীক্ষার অভিযোগ আনা হয়েছে। এ ধরনের বেসামরিক স্থাপনা ব্যবহার করে হামলার বিষয়টি এড়ানোর লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে দেশটি।

প্রতিবেদনে জানানো হয়, উত্তর কোরিয়া পারমাণবিক ও ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি সংযোজন, সংরক্ষণ ও পরীক্ষার এলাকা ছড়িয়ে দেওয়ার প্রমাণ পেয়েছে কমিটি।

অবশ্য গত শুক্রবার জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যদের কাছে জমা দেওয়া ৩১৭ পাতার ওই প্রতিবেদন বিষয়ে জাতিসংঘে উত্তর কোরিয়ার মিশন কোনও মন্তব্য করেনি।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের ওই খবরে বলা হয়েছে জাতিসংঘের ১৫ সদস্যর ওই কমিটির প্রতিবেদন তারা দেখেছে।

আরো পড়ুন: চা বিক্রি করে ২৩ দেশ ভ্রমণ।

কিছুদিন পরেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও দক্ষিণ কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের দ্বিতীয় সম্মেলনে বসার কথা। প্রভাবশালী দুই নেতার দ্বিতীয় সম্মেলনের  আগে ওই প্রতিবেদনের কথা জানা গেল।

এর আগে ২০১৮ সালের জুন মাসে ট্রাম্প ও কিমের প্রথম বৈঠকের পর পুরোপুরি পারমাণবিক কর্মসূচি থেকে সরে আসার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন উত্তর কোরিয়ার নেতা।

ট্রাম্প বলছেন, উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে চুক্তির বিষয়ে তাদের দারুণ অগ্রগতি হয়েছে। তবে জাতিসংঘের ওই প্রতিবেদনে পুরোপুরি উল্টো বিষয়টি দেখা গেছে। ওই প্রতিবেদনে পিয়ংইয়ংয়ের বিরুদ্ধে বিমানবন্দরসহ বেসামরিক স্থাপনা ব্যবহার করে দূরপাল্লার আন্তমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র সংযোজন ও পরীক্ষার অভিযোগ আনা হয়েছে। এ ধরনের বেসামরিক স্থাপনা ব্যবহার করে হামলার বিষয়টি এড়ানোর লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে দেশটি।

প্রতিবেদনে জানানো হয়, উত্তর কোরিয়া পারমাণবিক ও ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি সংযোজন, সংরক্ষণ ও পরীক্ষার এলাকা ছড়িয়ে দেওয়ার প্রমাণ পেয়েছে কমিটি।

অবশ্য গত শুক্রবার জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যদের কাছে জমা দেওয়া ৩১৭ পাতার ওই প্রতিবেদন বিষয়ে জাতিসংঘে উত্তর কোরিয়ার মিশন কোনও মন্তব্য করেনি।

Print Friendly, PDF & Email

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
আন্তর্জাতিক বিভাগের আলোচিত
ওপরে