২২শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং ৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
আমাকে হ’ত্যা করতে চেয়েছিল আল্লাহর রহমতে জনগণের দোয়ায়... ঠাকুরগাঁওয়ে এক কেন্দ্রেই ৪৬ জন ভুয়া পরীক্ষার্থী মা’দক দেশ ও সমাজকে ধ্বংস করে: নওগাঁয় খাদ্যমন্ত্রী বগুড়ায় সব সবজির দাম ঊর্ধ্বমুখী বানারীপাড়ায় ওসি খলিলুর রহমানের বিদায় সংবর্ধনা

প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের পদোন্নতির কাজে ধীরগতি ভোগান্তিতে পদোন্নতি যোগ্য কর্মচারীরা

  সমকালনিউজ২৪

এম আর অভি,বরগুনা ::  প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের পদোন্নতির কাজে ধীরগতি। সীমাহীন ভোগান্তিতে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের পদোন্নতি যোগ্য কর্মচারীরা।

জানাগেছে, প্রাণীসম্পদ অধিদপ্তরের প্রণীত খসড়া গ্রেডেশন অনুযায়ী যে সকল কর্মচারীরা ২০১২ সালের তিন এপ্রিল প্রথম চাকুরীতে যোগদান করেছে। তাদের মধ্যের ডেসপাস রাইডার ,দপ্তরী এবং এম এল এস এস (অফিস সহায়ক )পদবী ধারীরা পদোন্নতি পাওয়ার জন্য ২০১৪ সালের নভেম্বর মাসে সার্ভিস বহি সহ অন্যান্য কাগজ-পত্র অধিদপ্তরের জমা দেয়। কর্মচারীরা অধিদপ্তরের নিয়ম অনুযায়ী সকল কাগজ-পত্র জমা দিলেও আজ অবধি পদোন্নতি যোগ্য কর্মচারীদের পদোন্নতি হয়নি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে প্রাণিসম্পদ বিভাগে কয়েক কর্মচারী প্রতিবেদককে জানান, অধিদপ্তরের কাজে ধীরগতি ও তদারকি না থাকায় আমাদের সরকারি বিধি মোতাবেক পদোন্নতি হচ্ছে না ,আমরা চরম ভোগান্তিতে আছি। এ ভোগান্তি থেকে আমরা পরিত্রান চাই। তারা আরও জানান, অধিদপ্তরের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের গাফলতির কারণে আমরা পদোন্নতি যোগ্য কর্মচারীরা পদোন্নতি পাচ্ছি না। অধিদপ্তরে পদোন্নতির তালিকা প্রেরণ করা হলেও আমরা আজও পদোন্নতি পাইনি।

কর্মচারীরা ইনক্রিমেন্ট, টাইম স্কেল, ইবিক্রশ, শ্রান্তি-বিনোদন পাওনা থাকে। এ সব কর্মচারীদের প্রতিবছর অনেক টাকা খরচ করে অধিদপ্তর থেকে সার্ভিস বহি আনতে হয় । আবার কাজে অধিদপ্তরে বহি জমা দিতে ও বহি নিয়ে আসতে কষ্ট হয়।

গত (২২-১০-১৪) তারিখ প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহা-পরিচালক অজয় কুমারের পক্ষে প্রাণিস্বাস্থ্য ও প্রশাসন-১ এর উপ-পরিচালক ডা.স্বপন কুমার পাল স্বাক্ষরিত শাখা-১/৬এ-৬২৮(১)/২০১৪/১৮৮৭ নং স্মারকের অফিস আদেশ পত্রের আলোকে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরাধীন স্থায়ী রাজস্ব খাত ভূক্ত এবং প্রকল্পে নিয়োগ প্রাপ্ত হলে নিয়মিত ও স্থায়ীকরণকৃত ডেসপাস রাইডার, দপ্তরী এবং অফিস সহায়ক পদবীধারী যারা মাধ্যমিক বা সম-মানের শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্পন্ন এবং প্রতিমিনিটে মুদ্রাক্ষরিক লিখনে বাংলায় বিশ ও ইংরেজীতে আটাশ শব্দের গতি প্রদর্শণ করতে সক্ষম তাদেরকে যোগ্যতার ভিত্তিতে অফিস সহকারি কাম-কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক পদে পদোন্নতি দেয়ার জন্য ২০১৪ সালের ২০ নরেভম্বরের মধ্যে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কাছে তালিকা প্রেরণ করতে বলা হয় । বিধি মোতাবেক তালিকা প্রেরণের পরেও পদোন্নতি না হওয়ায় বিষয়টির প্রতি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করছে পদোন্নতি যোগ্য পদোন্নতি বঞ্চিত কর্মচারীরা।

তালিকা প্রেরণে পর ৫ বছর পেরিয়ে গেলেও পদোন্নতি যোগ্যদের পদোন্নতি না হওয়ার বিষয় প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের পরিচালক প্রশাসন ডা. আব্দুল জব্বার এর কাছে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি প্রতিবেদক কে জানান, অধিদপ্তরের পদোন্নতি বিষয়ক কমিটি আছে,এটা কমিটির কাজ, তবে পদোন্নতি যোগ্যদের জমা দেয়া কাগজ পত্রে কোন সমস্যা থাকতে পারে। অন্যথায় এতদিন পদোন্নতি আটকে থাকার কথা নয়।

প্রাণিসম্পদ বিভাগে জনবল সংকটের কথা স্বীকার করে তিনি আরও জানান ,পদোন্নতি আটকে থাকার ব্যাপারে অধিদপ্তরের কারো গাফলতি আছে কিনা সেটা আপনারা আসুন ,এসে দেখুন।

 

‘বিদ্রঃ সমকালনিউজ২৪.কম একটি স্বাধীন অনলাইন পত্রিকা। সমকালনিউজ২৪.কম এর সাথে দৈনিক সমকাল এর কোন সম্পর্ক নেই।’

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
বরগুনা বিভাগের আলোচিত
ওপরে