২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং ৯ই ফাল্গুন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
বরিশাল শেবাচিমে ময়লার স্তূপে মিললো ২২ অপরিণত শিশুর... স্বামীর লাশ ওয়ারড্রবে রেখে অফিস করলেন স্ত্রী! ঐক্যফ্রন্টকে গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর দাওয়াত চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ করার দাবিতে মানববন্ধন বন্য হাতির আক্রমণে নিহত জাসদ নেতা সাইমুন কনক

ফাঁস হওয়া ফোনালাপকে ‘ক্ষোভ’ বললেন নজরুল ইসলাম

 নিজস্ব প্রতিনিধিঃ সমকাল নিউজ ২৪

দলীয় নেতাদের ফাঁস হওয়া ফোনালাপকে ‘ক্ষোভ’বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান নজরুল ইসলাম খান। শনিবার (২৯ ডিসেম্বর) বিকেলে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনী মিলনায়তনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে এ মন্তব্য করেন তিনি।

 

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এ সদস্য আরও বলেন , ‘আপনারা যে ফোনালাপের কথা বলছেন, দেখেন কী দেশে আমরা বসবাস করি, আপনি স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছেন সেটা কোথায় জমা আছে এবং কবে ফাঁস হবে আমরা জানি না। আমাদের দু’জন নেতা আলোচনা করেছেন, তাদের আওয়াজটা খেয়াল করবেন সেটা ছিল তাদের ক্ষোভের আওয়াজ। ১০ বছর পর আমরা নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি। অনেক নির্বাচন দেখেছি কিন্তু এমন অসমতল নির্বাচন দেখিনি।’

 

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ভোট বর্জন করতে পারে প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘উনি আমাদের নেত্রী না। আমরা কী করব না করব, এটা তার বিষয় না।’

 

তিনি বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি না এবং আশা করি না যে আমাদের এজেন্টদের বের করে দেয়া হবে। যদি সেই পরিস্থিতি হয় তাহলে ঐক্যফ্রন্ট নেতারা আলোচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবে।’

 

নজরুল ইসলাম বলেন, ‘৮ নভেম্বর তফসিল ঘোষণার পর থেকে শুক্রবার (২৮ ডিসেম্বর) পর্যন্ত বিরোধী দলের ১১ হাজার ৫০৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মামলা হয়েছে ৯২৭টি। বিরোধী দলের অফিস, মিছিল ও কার্যক্রমে হামলা করা হয়েছে ২ হাজার ৮৯৬ বার। এতে ১৩ হাজার ২৫২ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। মারা গেছেন ৯ জন। শুক্রবার একদিনে গ্রেফতার করা হয়েছে ১ হাজার ১২৭ জনকে। মামলা হয়েছে ৫৯টি। ২৯৮ প্রার্থীর মধ্যে ১৭ জন এখনও কারাগারে। এ ১৭ জনের মধ্যে ৭ জন গ্রেফতার হয়েছেন নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর।’

 

তিনি বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন যাদের মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করেছে তার মধ্যে বাতিল হয়েছে ১৬ জনের। ১৯ জনের বাতিল করা হয়েছিল। শুক্রবার ৩ জন প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন।’

 

নজরুল ইসলাম আরও বলেন, ‘আমরা নানাভাবে খবর পাই সিটি কর্পোরেশন, উপজেলা, পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সরকার যা করেছে জাতীয় নির্বাচনেও সরকার সে রকম কিছু করার পরিকল্পনা করেছে। ভোটের আগে ভোটের বাক্স ভর্তি করা এবং জাল ভোট দেয়ার পরিকল্পনা নিয়ে এগুচ্ছে সরকার।’

 

জনগণ ও নেতাকর্মীদের কাছে আহ্বান জানাই, ‘আপনারা সজাগ ও সচেতন থাকবেন। যেকোনো ধরনের মন্দ পরিকল্পনা প্রতিহত করবেন। কেউ যেন আগেই বাক্স ভরতে না পারে। জাল ভোট দিতে না পারে। ফলাফল বদলে দিতে না পারে। মানুষ পরিবর্তন চায়, আমরাও পরিবর্তন চাই।

 

সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট আহ্বায়ক গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন, বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, গণফোরামের কার্যকরী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মোহসীন মন্টু, কেন্দ্রীয় নেতা জগলুল হায়দার আফ্রিক, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
ওপরে