২৬শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং ১৩ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
মিলার স্বামীকে খোলামেলা ছবি পাঠাতেন নওশীন! অবশেষে শপথ নিলেন আমতলী উপজেলা চেয়ারম্যান ফোরকান বরগুনায় নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধে মানববন্ধন মঠবাড়িয়ায় পাঁচ বছরের শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে... মধ্যরাতে বন্ধ হচ্ছে ২২ লাখ ৩০ হাজার সিম

ফেব্রুয়ারী মাস উপলক্ষে কোটচাঁদপুর ফুল চাষীদের ব্যস্ততা।

 এস.এম রায়হান উদ্দীন, কোটচাঁদপুর (ঝিনাইদহ) সমকাল নিউজ ২৪

মহান একুশে ফেব্রুয়ারী, পহেলা ফাল্গুন এবং ১৪ই ফেব্রুয়ারীর ভালোবাসা দিবস। বিশেষ এই দিনগুলোতে ঝিনাইদহ জেলা সহ সারাদেশে প্রচুর পরিমাণে থাকে ফুলের চাহিদা। আর এই উপলক্ষকে সামনে রেখে ব্যস্ত সময় পার করছেন এই জেলার কোটচাঁদপুর উপজেলার ফুল চাষীরা। ফুলের বাগানের পরিচর্যা, জমিতে সেচ, সার প্রয়োগসহ ফুলের উৎপাদন বাড়াতে গাছের নানা রকম পরিচর্জায় ব্যস্ত সময় পার করছেন ফুল চাষিরা ।

জেলা কৃষি অফিসের তথ্যমতে, এ বছর জেলাতে ফুল চাষ হয়েছে ৩৮৫ হেক্টর জমিতে। এর মধ্যে কোটচাঁদপুর উপজেলায় ৩৫ হেক্টর জমিতে চাষ হচ্ছে নানা জাতের ফুল। যার মধ্যে রয়েছে গোলাপ ৯ হেক্টর, গাঁদা ৩৩০ হেক্টর, রজনীগন্ধা ৩৩ হেক্টর, গস্নাডিওলাস, ১১ হেক্টর, জারবেরা ১.৫ হেক্টর ও লিলিয়াম ১ হেক্টর জমিতে।

সারা বছর ফুল উৎপাদন করলেও বসন্ত বরন, ভালোবাসা দিবস ও ২১ ফেব্রুয়ারীর দিনকে ঘিরেই মূল লক্ষ্য থাকে ফুল চাষিদের। আর এ তিনটি দিবসে ফুল বিক্রি করেই মূলত সারা বছরের লাভ-ক্ষতির হিসেব মেলান ফুল চাষীরা।

ঝিনাইদহ জেলার কোটচাঁদপুর উপজেলার ইকড়া গ্রামের ফুল চাষী রফিক উদ্দীন বলেন, ২ বিঘা জমিতে গাঁদা ফুলের আবাদ করেছি। ফেব্রুয়ারী মাসের ফুলের চাহিদা মেটাতে এখন জমিতে ওষুধ স্প্রে করছি। কিছু দিন পরই বাজার ভালো পাওয়ার আশা করছি।

একই গ্রামের কৃষক আদম আলি জানান, তিনি ১ বিঘা জমিতে গোলাপ ফুলের চাষ করেছেন। এরই মধ্যে জমিতে সেচ ও সার দেওয়ার কাজ শেষ হয়েছে। তিনি আরোও জানান, বর্তমানে ২ থেকে ৩ টাকা দরে গোলাপ ফুুল বিক্রি হচ্ছে। ভালোবাসা দিবসে এই ফুলের দাম ৮ থেকে ১০ টাকায় বিক্রির আশা করছি।

এদিকে পাশপাতিলা গ্রামের হায়দার আলী বিশ্বাসের ছেলে ফুল চাষী জহির উদ্দীন জানান, তিনি এবার ১ বিঘা জমিতে গাঁদা ফুলের চাষ করেছেন। সামনে বিশেষ দিবসে বাজারে বেশী দামে বিক্রয় করার আশায় রাতদিন পরিচর্যা করে যাচ্ছেন। তিনি এই ১ বিঘা জমির ফুল ৪০-৫০ হাজার টাকা বিক্রয় করবেন বলে আশা করছেন।

কোটচাঁদপুর উপজেলার কৃষক আদম আলী, রফিক উদ্দিন ও জহির উদ্দীনের মতো ঝিনাইদহ জেলার কোটচাঁদপুর উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের মাঠে ফুল চাষী কৃষকরা দিন-রাত পরিশ্রম করছেন উৎপাদন ও দাম ভালো পাওয়ার আশায়।

ফুলচাষী তরিকুল ইসলাম বলেন, ফুল চাষা-বাদ একটি খুবই লাভজনক চাষ। এই মাসে আরোও ভালো দাম পাব এই আশায় নিয়মিত পরিচর্যা করছি। ফেব্রুয়ারীর ২য় সপ্তাহ থেকেই ফুলের চাহিদা ব্যাপক হারে বেড়ে যাবে। বিশেষ করে আমাদের ঝিনাইদহ জেলার ফুলের গুণগত মান ভালো থাকায় ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট ও ময়মনসিংহসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রচুর চাহিদা রয়েছে। তবে সড়ক ও ফেরি পারা-পারে সমস্যার কারণে অনেক সময় ভোগান্তি পোহাতে হয়।

এ বিষয়ে কোাটচাঁদপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শেখ সাজ্জাদ হোসেন বলেন, এ উপজেলায় অন্যান্য বছরের তুলনায় এবছর ফুল চাষ বেশি হচ্ছে । আমাদের কৃষি বিভাগ থেকে ফুলচাষীদের ফলন ভালো পেতে উৎপাদন ব্যবস্থাপনা, পরিমিত সারের ব্যবহার, সময়মতো সেচ প্রদানের পরামর্শসহ সকল প্রকার প্রযুক্তিগত সহযোগিতা করা হচ্ছে। তিনি আরও জানান, ফুল চাষে আধিক মুনাফা ও দেশ জুড়ে চাহিদা থাকায় এ এলাকার কৃষকরা দিন দিন ফুল চাষে আগ্রহী হচ্ছেন।

Print Friendly, PDF & Email

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
ওপরে