১৬ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং ১লা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
ঝালকাঠিতে ৫ম শ্রেনীর ছাত্রীকে যৌ’ন নিপড়ন, দিনে থানায়... স্ত্রীর মর্যাদা না পেয়ে স্বামীর বাড়িতে কাবিননামা... জয়নগর ইউনিয়ন আওয়ামিলীগের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিলের... নওগাঁয় হাসপাতাল থেকে চুরি যাওয়া শিশু ১১দিন পর উ’দ্ধার আবরার হ’ত্যার ন্যয়বিচারের দাবীতে চাঁদপুরে মানববন্ধন...

বগুড়ায় বিএনপি ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মীদের সংঘর্ষ, আহত ৫

 জিএম মিজান,বগুড়া, সমকালনিউজ২৪

বগুড়া-৬ সদর আসনে উপ-নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মী সমর্থকদের সাথে বিএনপির প্রার্থীর কর্মীদের মধ্যে ব্যাপক সংর্ঘষ হয়েছে। এতে উভয় পক্ষের কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন। এ পর্যন্ত পাঁচজনকে স্থানীয় বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সোমবার বেলা ২টার সময় বগুড়া সদরের শাখারিয়া ইউনিয়নের পাঁচবাড়িয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। সহিংসতা এড়াতে ঘটনাস্থলে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, মালয়েশিয়া প্রবাসী যুবদল সভাপতি মো: মিনহাজ বগুড়া-৬ আসনে উপ-নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন। এ কারণে তার ভাই শাখারিয়া ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এখলাস ছাড়াও স্থানীয় বিএনপির কর্মী-সমর্থকরা ধানের শীষের পক্ষে কাজ না করে মিনহাজের আপেল মার্কার পক্ষে প্রচারণা চালাচ্ছেন।

সোমবার দুপুরে ধানের শীষের প্রার্থী গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ তার কর্মী সমর্থকদের নিয়ে শাখারিয়া ইউনিয়নের পাঁচবাড়িয়া গ্রামে ধানের শীষের প্রচার চালাতে গেলে। হঠাৎ মিনহাজের কর্মীসমর্থকেরা একই স্থানে আপেল মার্কার পক্ষে প্রচার প্রচারণা শুরু করেন। এতে ধানের শীষের নেতাকর্মীরা এক পর্যায়ে তাদের বাধা দিলে শুরু হয় সংর্ঘষ।

এসময় স্বতন্ত্র প্রার্থী মিনহাজের কর্মীসমর্থকেরা ধানের শীষের কর্মীদের বহরে থাকা দুইটি মাইক্রোবাস এবং বেশকয়েকটি মোটরসাইকেল ভাংচুর করে। পরে ধানের শীর্ষের কর্মীরা আপেল মার্কার নির্বাচনী অফিস ভাংচুর করে। মিনহাজের পোস্টার আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়। সংর্ঘষে আহতদের মধ্যে ধানের শীষের কর্মী শ্রমিকদল নেতা আবদুল্লাহ আল মামুন, ছাত্রদল নেতা সিপাত আল আমিন, আরিফুর রহমান আরিফ এবং আপেল মার্কার কর্মী মাসুদ ও সম্রাটকে গুরুতর আহত অবস্থায় বিভিন্ন চিকিৎসা কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।

স্বতন্ত্র প্রার্থী মিনহাজ এর সাথেে কথা বললে তিনি বলেন, কোনো উস্কানিমূলক কথাবার্তা ছাড়াই ধানের শীষের কর্মীরা আমার নির্বাচনী অফিসে হামলা চালায় এবং পাঁচ বাড়িয়া গ্রামে লাগানো আপেল মার্কার পোস্টার-ব্যানার ছিড়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। এসময় আমার কর্মীরা বাধা দিলে সংর্ঘষ শুরু হয়। সংর্ঘষে আমি নিজেও লাঞ্চিত হয়েছি।

এ দিকে বগুড়া সদর থানা বিএনপির সভাপতি মাফতুন আহম্মেদ খান রুবেল এর সাথে কথা বললে তিনি বলেন, মিনহাজের ভাই এখলাস স্থানীয় ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক তাকে ডেকে বলা হয়, যে স্থানীয় দলীয় অফিসকে আপেল মার্কার নির্বাচনী অফিস বানালেন কেনো জানতে চাইলে তারা কোনো কিছু না বলেই ধানের শীষের নেতা কর্মীদের উপর অতর্কিত হামলা চালায়।

এতে স্থানীয় বিএনপি’র বেশ কিছু নেতা কর্মী গুরুতর আহত হয়ে বিভিন্ন চিকিৎসা কেন্দ্রে ভর্তী হয়েছে।

বগুড়া সদর থানার ওসি বদিউজ্জামান এ প্রতিবেদককে বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রেণে আছে।

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
ওপরে