১৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং ৬ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
একই কাজ সমানতালে করলেও মজুরী বৈষম্যের শিকার হচ্ছে নারী... রি’ফাত হ’ত্যা : শেষ সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ চলমান ওপার বাংলার অভিনেতা তাপস পাল আর নেই মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে ইবিতে সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক... দ. সুনামগঞ্জে কবি আশিন আমরিয়ার মৃ’ত্যুতে শোকসভা

বঙ্গবন্ধুর প্রতি পত্র লিখে প্রেরণ করলো ইবি শিক্ষার্থীরা

  সমকালনিউজ২৪

শাহরিয়ার কবির রিমন, ইবি :

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক সংগঠন ‘লণ্ঠন’ কর্তৃক “জাতির পিতার নিকট পত্র লিখন,পঠন ও প্রেরণ” শীর্ষক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ডায়ানা চত্বরে আব্দুর রউফের সভাপতিত্বে এবং মোঃ আলমগীর হোসাইনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক ড.শাহজাহান মন্ডল,বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন ড. মোঃ সাজ্জাদ হোসেন, মোঃ শফিকুল ইসলাম, ড. মোঃ নাজমুল হুদা প্রমূখ।

সোমবার (২৭ জানুয়ারি) ডায়না চত্ত্বরে কেমন বাংলাদেশ চায় শিক্ষার্থীরা এ নিয়ে ‘জাতির পিতার নিকট পত্র লিখন, পঠন ও প্রেরণ’ বিষয়ক অনুষ্ঠান হয়েছে। পত্র লেখকরা পোস্ট কোড ১৯৭১, বাংলাদেশ ঠিকানায় চিঠি লিখেন। পরে চিঠিটি আকাশে উড়িয়ে দেওয়া হয়।

বঙ্গবন্ধুর কাছে চিঠি লিখে প্রথম হয়েছেন ইংরেজি বিভাগের ১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ছাত্রী আয়েশা বিনতে রাশেদ তিথি, দ্বিতীয় হয়েছেন একই বিভাগের আবু সিদ্দিক সোহাগ ও তৃতীয় হয়েছেন লোকপ্রশাসন বিভাগের ১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের মিনহাজুল হক রুমন। পরে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার প্রদান করা হয়।

লণ্ঠন এর সভাপতি আব্দুর রউফের সভাপতিত্বে ও আলমগীর হোসাইনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন অধ্যাপক ড.শাহজাহান মন্ডল, বিশেষ অতিথি ছিলেন ড. মো. সাজ্জাদ হোসেন, মো. শফিকুল ইসলাম ও ড. মো. নাজমুল হুদা।

প্রথম স্থান অধিকারকারী ইংরেজি বিভাগের ১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ছাত্রী আয়েশা বিনতে রাশেদ তিথির চিঠি তুলে ধরা হলো-

“বঙ্গবন্ধু, কেমন আছেন আপনি? লণ্ঠনের আয়োজনে ২১ শতকের এই সময়টা, ঠিক এই সময়টা। যখন প্রবল উৎসাহ উদ্দীপনা নিয়ে আমরা সমগ্র বাংলাদেশ আপনার জন্মশতবার্ষিকী পালন করতে যাচ্ছে ডায়না চত্ত্বরে পঞ্চাশোর্ধ তরুণ তরুণী কি গভীর আগ্রহ নিয়ে যে আপনাকে চিঠি লিখতে যাচ্ছি তা কি আপনি স্বর্গোদ্বার থেকে বুঝতে পারছেন বঙ্গবন্ধু? হ্যাঁ নিশ্চয়ই পারছেন তাইতো এত আবেগ, এত ভালোবাসা নিয়ে সেই পঞ্চাশোর্ধ তরুণ তরুণীর মধ্যে থাকা ক্ষুদ্র আমিও কিছু লেখার সাহস পাচ্ছি।

জানেন পিতা, আপনার স্বপ্নের বাংলাদেশ এখন ঠিক কোথায় দাঁড়িয়ে। শিক্ষা সংস্কৃতি সবেতেই আমরা বিশ্বের কাছে নাম কুড়োচ্ছি। যোগ্য উত্তরসূরি রেখে গেছেন বটে। তবে পিতা আপনার সোনার বাংলা যে এখনো সেই ২১ ক্যারেটের সোনা হয়ে উঠতে পারলোনা। সব কথা বলবো বল যখন ঠিক করেছি, তখন বলি? ৮ ই এপ্রিল-১১ এপ্রিল কোটা সংস্কারের আন্দোলন, ২৯ জুলাই-৮ আগস্ট পর্যন্ত নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলন। নুসরাত তনুর মত আমার নিজের বোনের ধর্ষণের মত এই কষ্টের কথাগুলো আজ খুব বলতে ইচ্ছে করছে। কারিগরি প্রশিক্ষণ কিংবা সিজিপিএ নির্ভর, নৈতিকতাবিহীন (প্রায় ক্ষেত্রেই) এই শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে আপনার দেশ গড়ার তরুণ কারিগরেরা ঠিক কতটা ভয়ানক সমস্যা পার করে এটা কি আপনি বুঝতে পারেন?

বঙ্গবন্ধু আপনি কি কখনো ভেবেছিলেন, আপনার এই স্বপ্নের দেশ স্বাধীনতার এই এতগুলো বছর পার করেও মেধাবীদের দেশ থেকে পাচার হওয়া, প্রাচ্যের প্রতি প্রবল টানকে অগ্রাহ্য করতে পারবেনা?

আপনি কি ভেবেছিলেন ন্যায্য অধিকারের দাবিতে আপনার মানুষ প্রাণ হারাবে? আপনার তনয়া নুসরাত, তনু কিংবা আরাও অনেক মেয়ে শুধুমাত্র নারী পরিচয়ের জন্য অন্য আরেক বাঙালির কাছে ধর্ষিত হবে? আচ্ছা ধর্ষণ, প্রাণ হারানো, মেধা পাচার খুব জটিল শব্দ ব্যবহার করব ফেলেছি তাইনা? চাইনা কখনো চাইনা এমন শব্দের ব্যবহার করতে। বিশ্বাস করুন কখনো না, তবে হয়ে যায় যে। আচ্ছা থাক এসব কথা। স্বর্গের ওপর থেকে আপনার সুযোগ্য কন্যাকে আরো আরো আশীর্বাদ দিবেন প্লিজ।

আপনার কাঙ্ক্ষিত বাংলা গড়তে তার অমরের ওই অমোঘ অস্রটার যে খুব দরকার পিতা, খুব দরকার।

আপনারই কথা ‘জয় বাংলা’ দিয়েই শেষ করলাম আমার এই নগন্য কথামালা। আশীর্বাদের করুন ধারাটা বন্ধ করবেন না প্লিজ।”

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
ওপরে