২৫শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
শার্শায় পৈত্রিক ভিটা থেকে উচ্ছেদের চেষ্টার অভিযোগ... কোন ভাবেই বাল্য বিবাহ পড়ানো যাবেনা… এমপি শাহে আলম মির্জাপুরে উচ্ছেদের পর পরই সরকারি রাস্তা বন্ধ করে রাতের... মোহাম্মদপুরে বিহারী পট্টির বস্তির আগুন নিয়ন্ত্রণে সাংবাদিক কমলেশ রায়ের মায়ের প্রয়াণে বানারীপাড়া...

বরগুনায় যুবলীগ নেতা ইউপি চেয়ারম্যানকে কু’পিয়ে গুরুতর জখম

  সমকালনিউজ২৪

আসাদ সবুজ বরগুনা থেকেঃ

বরগুনায় এক ইউপি চেয়ারম্যানকে কু’পিয়ে গুরুতর জখম করেছে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে বরগুনার বেতাগী উপজেলার সরিষামুড়ী ইউনিয়নের কালিকাবাড়ি বাজারে এ ঘটনা ঘটে। পরে আহতাবস্থায় তাকে উদ্ধার করে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন স্থানীয়রা।

গুরুতর যখম ওই ইউপি চেয়ারম্যানের নাম ইমাম হাসান শিপন জমাদ্দার। তিনি বরগুনার বেতাগী উপজেলার সরিষামুড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবং জেলা যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক। গুরুতর যখম এই ইউপি চেয়ারম্যানের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

ইউপি চেয়ারম্যান শিপনের উপর কারা হামলা চালিয়েছে তা এখন পর্যন্ত নিশ্চিত করতে পারেননি পুলিশ ও তার পরিবারের সদস্যরা। তবে নির্বাচন কেন্দ্রিক প্রতিপক্ষরা এই চেয়ারম্যানের উপর হামলা চালাতে পারে বলে ধারণা তাদের।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বেতাগী উপজেলার সরিষামুড়ী ইউনিয়নের কালিকাবাড়ি বাজার সংলগ্ন একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে অতিথি হয়ে যোগদান করতে যাচ্ছিলেন ইউপি চেয়ারম্যান ও যুবলীগ নেতা ইমাম হাসান শিপন জমাদ্দার। এ সময় কালিকাবাড়ি বাজারে পৌঁছালে ধারালো অ’স্ত্র দিয়ে তার উপর অতর্কিত হামলায় চালিয়ে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। এতে তিনি গুরুতর যখম হন। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসেন।

এ বিষয়ে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের চিকিৎসক ডাঃ মোঃ তারেক হাসান বলেন, হামলায় এই ইউপি চেয়ারম্যানের অবস্থা গুরুতর। ধারালো অ’স্ত্রের আঘাতে তার বাম পায়ের হাড় বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। এছাড়াও বিচ্ছিন্ন হয়েছে তার ডান পায়ের রগ। গুরুতর যখম হয়েছে তার ডান হাত। তাই তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

এ বিষয়ে বেতাগী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী শাখাওয়াত হোসেন বলেন, ইউপি চেয়ারম্যানের উপর হামলা খবর শুনেই আমারা ঘটনাস্থলে ছুটে এসেছি। কারা তার উপর হামলা চালিয়েছে তা এখন পর্যন্ত নিশ্চত হওয়া না গেলেও নির্বাচন কেন্দ্রিক প্রতিপক্ষরা এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকতে পারে বলে আমাদের ধারনা। তাই সন্দেহভাজন আসামিদের গ্রে’ফতারের জন্য আমরা অভিযান শুরু করেছি।

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
বরগুনা বিভাগের সর্বশেষ
বরগুনা বিভাগের আলোচিত
ওপরে