২২শে মে, ২০১৯ ইং ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
আখাউড়ায় আইনমন্ত্রীর নিজস্ব অর্থায়নে ইফতার মাহফিল... রংধনু শপিং লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক বাবলু ৫০ কোটি... চাঁদপুরের কৃতি সন্তান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জসিম... চাঁদপুরে কেরোসিনের আগুনে নববধূর মৃত্যু : আটক স্বামী। পত্নীতলায় মালঞ্চ কিন্ডার গার্টেন এন্ড হাইস্কুলের...

বরগুনায় শিক্ষকদের প্রশিক্ষনে উৎকোচ ও চাঁদা আদায়ের অভিযোগ

 ইফতেখার শাহীন,বরগুনা। সমকাল নিউজ ২৪

বরগুনায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক প্রশিক্ষণে সরকারী পরিপত্রের নিয়ম ভঙ্গ করে ৬ জন শিক্ষক প্রশিক্ষণে অংশগ্রহন করলে তাদের কাছ থেকে উৎকোচ গ্রহন এবং ৩০ জন প্রশিক্ষণার্থী শিক্ষকের কাছ থেকে চাঁদা আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বরগুনা ইউআরসি কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, চতুর্থ প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচি (পিইডিপি-৪) এর আওতায় ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে উপজেলা/থানা রিসোর্স সেন্টারে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের ৩ দিন ব্যাপী Competency based items development marking and test administration” প্রশিক্ষণ হবে। এ প্রশিক্ষণের প্রথম ব্যাচে ৩০ জন শিক্ষক প্রশিক্ষণার্থী ৬ মার্চ থেকে ৮ মার্চ ৩ দিন ব্যাপী বরগুনা সদর উপজেলা রিসোর্স সেন্টারে অংশ নেয়। সরকারী পরিপত্রানুযায়ী এ প্রশিক্ষনে ইতিপূর্বে যে অংশগ্রহন করেছে পুনরায় সেই প্রশিক্ষণার্থী অংশ নিতে পারবেনা। পরিপত্রে এ নিয়ম থাকলেও জানা যায়, প্রথম ব্যাচে ৩০ জন প্রশিক্ষণার্থীর মধ্যে ৬ জন প্রশিক্ষণার্থী এ নিয়ম ভঙ্গ করে প্রশিক্ষণে অংশগ্রহন করেছেন। এই ৬ জন প্রশিক্ষণার্থীকে বৈধ করতে তাদের কাছ থেকে ৫’শ টাকা উৎকোচ গ্রহন করে ইউআরসির কম্পিউটার অপারেটর আরিফ হোসেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শিক্ষক আরিফকে ৫’শ টাকা দেয়ার কথা স্বীকার করেন। এছাড়াও প্রথম ব্যাচের প্রশিক্ষণে ইউআরসি ইন্সট্রাকটর আবু ইউসুফ মোঃ সরোয়ার হোসেন ৩০ জন প্রশিক্ষণার্থীর কাছ থেকে ১’শ টাকা করে চাঁদা আদায় করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া যায়।

জানতে চাইলে ইউআরসি ইন্সট্রাকটর সরোয়ার হোসেন এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে তিনি বলেন, অফিসের ফ্লোর ম্যাট, প্রশিক্ষণার্থীদের বিলের রেভিনিউ এবং বিল পাশ করাতে এজি অফিসে দিতে হবে বলে তাদের কাছ থেকে খরচা বাবদ ১’শ টাকা করে নেয়া হয়েছে। তিনি আরও বলেন, আমার বিরুদ্ধে যদি কোন অভিযোগ থাকে তাহলে আপনারা পেপারিং করতে পারেন, যা খুশী তাই করেন এজন্য আমি ভয় পাইনা। ৬ জন শিক্ষকের কাছ থেকে ৫’শ টাকা করে কম্পিউটার অপারেটর আরিফ উৎকোচ নিয়েছে এর সত্যতা স্বীকার করে তিনি বলেন, এ জন্য আমি আরিফকে শোা-কজ করেছি। শো-কজ পত্র দেখতে চাইলে তিনি বলেন এই দুই দিন বিদ্যুৎ নেই বলে চিঠি টাইপ করাতে পারিনি।

৬ জন প্রশিক্ষণার্থীর কাছ থেকে ৫’শ টাকা করে নিয়েছে কিনা এ বিষয়ে আরিফ হোসেন বলেন, আমি কোন টাকা নেইনি, দরকার হলে ওই ৬ জন শিক্ষককে আপনাদের সামনে হাজির করবো, তাদের কাছ থেকে আপনারা শুনবেন।
এ ব্যাপারে বরগুনা পিটিআই সুপারিনটেনডেন্ট (ভারপ্রাপ্ত) মোঃ জাহাঙ্গীর আলম জানান, এ ঘটনা আপনাদের কাছ থেকে শুনলাম, তদন্ত সাপেক্ষে এর দ্রুুত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
বরগুনা বিভাগের সর্বশেষ
বরগুনা বিভাগের আলোচিত
ওপরে