১৯শে জুলাই, ২০১৯ ইং ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
পঞ্চগড়ে মাতৃত্বকালীন ভাতা উত্তোলনে ভোগান্তি,দেখার কেউ... দাগনভূঞায় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে শোভাযাত্রা ও পোনা... ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে তরুণ প্রজন্ম নেটের বিভিন্ন... আমতলী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন হাজার- হাজার সমর্থকদের... বরগুনায় জব ফেয়ার অনুষ্ঠিত

বিমানে ঘুম ভাঙ্গার পর একি দেখলেন নারী!

 অনলাইন ডেস্ক সমকাল নিউজ ২৪

এয়ার কানাডার একটি বিমানে চড়ে কিউবেক থেকে টরোন্টো যাচ্ছিলেন টিফানি অ্যাডামস নামের এক নারী। পথে যেতে যেতে ঘুমিয়ে ঘুমিয়ে পড়েছিলেন তিনি। প্রচণ্ড ঠাণ্ডায় হঠাৎ তার ঘুম ভেঙে যায়। উঠে দেখেন চারদিকে ঘুটঘুটে অন্ধকার, আশপাশে কেউ নেই। দেখে তিনি ভয় পেয়ে গেলেন। কি ঘটেছে সেটি বুঝতে কিছুক্ষণ সময় লাগলো।

যা বুঝলেন তা হল, বিমান অবতরণের পর বিমানের ক্রু ও বিমানবন্দরের কর্মীরা সকল ধরনের কার্যক্রম শেষ করে ঘুমন্ত অবস্থায় তাকে বিমানের ভেতরে আটকে রেখেই সবকিছু বন্ধ করে চলে গেছেন।

টিফানি বলছেন ঘুম থেকে উঠে দেখেন তখনো তার সিটবেল্ট বাধা রয়েছে। বিমানের যাত্রা শেষ হওয়ার পর বিমান ত্যাগ করার আগে পুরো বিমানের সকল অংশ ভালো করে দেখে তবেই বিমানের কর্মীদের বের হওয়ার কথা। কিন্তু তারা টিফানিকে রেখেই বিমান ছেড়ে যান। বিমানটি টরোন্টো পেয়ারসন বিমানবন্দরে অবতরণের পরও ঘুমিয়েছিলেন তিনি। এভাবে কেটে যায় কয়েক ঘণ্টা। ঘুমন্ত অবস্থায় বিমানটি রানওয়েতে পার্ক করা ছিল।

পুরো বিষয়টা বোঝার পর প্রথমে অন্ধকারে হাতড়ে মোবাইল ফোন বের করেন এবং এক বান্ধবীকে নিজের অবস্থার কথা জানিয়ে ম্যাসেজ করেন।কিন্তু অল্প কিছুক্ষণের মধ্যেই ফোনের চার্জ শেষ হয়ে যায়। কোনোমতে বিমানের ককপিটে পৌঁছান তিনি। সেখানে একটা টর্চ খুঁজে পান। সেই টর্চ জ্বালিয়ে কোনোভাবে বিমানের পাশ দিয়ে যাওয়া বিমানবন্দরের এক কর্মীর দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সফল হন টিফানি। বন্ধ বিমানে ওই যাত্রীকে দেখে চমকে উঠেছিলেন ওই বিমানবন্দরের কর্মীও। পরে তাকে বিমান থেকে বের করে আনা হয়। আর এভাবেই প্রাণে বেঁচে যান তিনি।

গত ৯ই জুনের এই ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে এয়ার কানাডা জানিয়েছে, তারা বিষয়টি তদন্ত করছেন। অ্যাডামস এই ঘটনার পর থেকে প্রায়ই রাতে ভয়াবহ দু:স্বপ্ন দেখেন বলে জানা গেছে। সূত্র: বিবিসি বাংলা

Print Friendly, PDF & Email

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
আন্তর্জাতিক বিভাগের আলোচিত
ওপরে