২৩শে জুলাই, ২০১৯ ইং ৮ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
রাজশাহীর চারঘাটে ছেলেধরা সন্দেহে ৫ এনজিও কর্মীকে... এসএমপির ১৬ নারী কনস্টেবলকে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ প্রদান দুর্গাপুরে ছেলেধরা সন্দেহে আটক – ১ কলারোয়ার বাঁটরায় বর্ষা মৌসুমের টমেটো চাষে আগ্রহ বাড়ছে... রিফাত হত্যা : রিশান ফরাজীর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

বেতাগীতে গলাকেটে হত্যার প্রধান আসামী গ্রেফতার।

 শফিকুল ইসলাম ইরান,বেতাগী, সমকাল নিউজ ২৪

বরগুনার বেতাগীতে আলোচিত গলা কেটে হত্যাকান্ডের প্রধান আসামীকে গ্রেফতার করেছে বেতাগী থানা পুলিশ।

মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে পাচঁ টায় রাজধানীর কদমতলী থানা পুলিশের সহায়তায় বেতাগী থানার এস.আই মো. রাসেল এর নেতৃত্বে হত্যাকান্ডের প্রধান আসামী ইকবাল বয়াতীকে গ্রেফতার করেন।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে,হত্যাকান্ডের প্রধান আসামী ইকবার বয়াতী (৪৫) মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার বাসিন্দা ।

উল্লেখ্য যে, বিগত ২০১৮ সালের ১৫ অক্টোবর রোজ সোমবার সন্ধ্যার পর বেতাগী উপজেলার সদর ইউনিয়নের কিসমত করুনা গ্রামে এক মাথাবিহীন অজ্ঞাত যুবকের লাশ উদ্ধার করেন বেতাগী থানা পুলিশ। ঘটনার সময় শরীর থেকে মাথা বিচ্ছিন্ন ও অজ্ঞাত থাকার কারনে পরিচয় সনাক্ত করা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছিলেন বেতাগী থানা পুলিশ। তবে শুধুমাত্র সোমবার সন্ধ্যা আনুমানিক ৭টা থেকে রাত ৯ টার মধ্যে ঘটনাটি ঘটেছে এমনটাই ছিল পুলিশের ধারণা। তৎকালীন সময়ে পুলিশ সূত্রে জানা যায়, হত্যার শিকার বাবুল শেখ (৪৮) মাদারীপুর জেলার রাজৈর উপজেলার কোদালিয়া বাজিতপুর গ্রামের মৃত মোবারক আলী শেখ এর পুত্র ।

বরগুনা পুলিশ সুপার মো: মারুফ হোসেনের দিক-নিদের্শনায় হত্যাকান্ডের কারন ও রহস্য খুজে বের করার জন্য বেতাগী থানার অফিসার ইনচার্জ মো:কামরুজ্জামান মিয়ার নের্তৃত্বে মাঠে নামে বেতাগী থানা পুলিশ। এক পর্যায়ে তদন্তের তিন দিনের মধ্যে ঘটনাস্থল থেকে এক কিলোমিটার উত্তরে খুজে পাওয়া হয় শরীর থেকে বিছিন্ন মাথা এবং তদন্ত প্রক্রিয়া সফল হলে উঠে আসে এ নির্মম হত্যাকান্ডের বিস্তারিত তথ্য। একইসাথে গ্রেফতার করা হয় ঘটনায় জড়িত থাকা বেশ কয়েকজন আসামীকে।

আসামীদের গ্রেফতারের পর (৩০২ ধারায়) অজ্ঞাত হত্যা মামলার বাদী এস আই আমিনুল ইসলাম এঘটনায় জড়িত থাকা আসমা বেগম (৩০) ও তার ননদ লাকী বেগম (২৬), ভাই জুয়েল কে জেল হাজতে প্রেরণ করে। উলেখ্য যে গ্রেফতারকৃত আসামী তিনজনই বেতাগীর কিসমত করুণার বাসিন্দা।

বেতাগী থানার অফিসার ইনচার্জ মো: কামরুজ্জামান মিয়া সমকাল নিউজ ২৪ ডট কম’কে বলেন, তৎকালীন সময়ে ঘটনার মাত্র আট দিনের ব্যবধানে ঘটনায় জড়িত থাকা তিনজন আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। প্রধান আসামীকে গতকাল (মঙ্গলবার) গ্রেফতার করা হয়েছে।

ঘটনার অল্প সময়ের মধ্যে থানা পুলিশের এমন কৃতিত্বপূর্ণ তথ্য উৎক্ষেপণ কর্মকান্ডে ধন্যবাদ জানিয়েছে, বরগুনা পুলিশ সুপার মো: মারুফ হোসেন।

Print Friendly, PDF & Email

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
বরগুনা বিভাগের সর্বশেষ
বরগুনা বিভাগের আলোচিত
ওপরে