২৭শে জুন, ২০১৯ ইং ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
রিফাত হত্যার ঘটনায় মর্মাহত হাইকোর্ট জানতে চান কি... স্বামীর খুনীর সঙ্গে স্ত্রীর ফুল হাতে ছবি ভাইরাল! বরগুনায় রিফাত হত্যা মামলায় গ্রেফতার – ১ কলারোয়া থানা পুলিশের অভিযানে ছয় ব্যক্তি আটক। মনোহরগঞ্জে বসত বাড়িতে সশস্ত্র হামলা ভাঙচুর ও লুটপাট

বেতাগীতে শিশুপার্ক নেই বিনোদন থেকে বঞ্চিত শিশুরা

 শফিকুল ইসলাম ইরান সমকাল নিউজ ২৪

বরগুনার বেতাগীতে শিশুপার্ক না থাকায় মানসিক ও শারীরিক বিকাশ এবং বিনোদন থেকে বঞ্চিত হচ্ছে শিশু-কিশোররা। ইতোপূর্বে বেতাগী উপজেলা পরিষদ ও পৌরসভা শিশুপার্ক ও বিনোদন কেন্দ্র নির্মাণের আশ্বাস দিয়ে থাকলেও বাস্তবে তা দৃশ্যমানের কোন উদ্যোগ নেই।

জানা যায়, দেড় লাখ জনসংখ্যা অধ্যুষিত বেতাগী উপজেলায় ১টি পৌরসভাসহ ৭ টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত। যার বেশি সংখ্যক শিশু-কিশোর ও যুবক। তবুও আজ পর্যন্ত এখানে গড়ে উঠেনি কোনো বিনোদন কেন্দ্র কিংবা পার্ক। এছাড়াও এখানকার মানুষ ক্রীড়া প্রেমিক। বিশেষ করে ক্রিকেট ও ফুটবল খেলা হলে হাজার হাজার দর্শক খেলার আনন্দ উৎসবে মেতে উঠে।

সরেজমিনে দেখা গেছে,এখানে বিনোদন বা খেলাধুলার জন্য প্রয়োজনীয় স্থান না থাকায় যুব সমাজ অলস সময় কাটাচ্ছে। এতে করে মাদকাসক্তি, পর্নোগ্রাফিতে আসক্তি, ইভটিজিং, জুয়াসহ নানা ধরনের অসামাজিক কর্মকান্ডে জড়িয়ে যাচ্ছে। এমনকি কেউ কেউ মাদক ব্যবসায় জড়িত হয়ে পড়ছে। এছাড়াও স্কুল ও বাড়ির কঠোর শাসন এবং লেখাপড়ার তীব্র প্রতিযোগিতার কারনে তাদের চরম মানসিক চাপে পড়তে হয়। স্থানীয় সচেতন ব্যক্তিরা মনে করেন,এসব থেকে রেহাই পেতে খেলাধুলা ও শিক্ষা সংস্কৃতির চর্চাসহ বিনোদনের কোন বিকল্প নেই।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, শিশুপার্ক ও বিনোদন কেন্দ্রের অভাবে লক্ষ্য করা গেছে ঈদ, পূজা ও বড়দিন কিংবা অন্য কোন উৎসবে সরকারি ছুঁটিতে এখানকার উৎসুক মানুষ স্ত্রী, পরিবার-পরিজন, আত্মীয়-স্বজন, বন্ধুবান্ধব নিয়ে একটু বিনোদন কিংবা মুক্তবাতাসে নি:স্বাস নেওয়ার জন্য এলাকার বাইরে বিভিন্নস্থানে ছুঁটে যায়।

সদ্য উদযাপিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের ৯৯ তম জন্ম বার্ষিক ও জাতীয় শিশু দিবসে শিশু-কিশোর ও যুবকদের মানসিক এবং শারীরিক বিকাশে পৌর শহরে অথবা তার আশে- পাশে কিংবা বিষখালী নদীর তীরে শিশুপার্ক ও বিনোদন কেন্দ্র গড়ে তোলার মত দেন বেতাগী পৌরসভার সাইমন্তী শিলা , সৈয়দা রিত্তিকা , ইসলান সুবর্ণ ত্বোয়া ও নূরে এলমা মীম সহ একাধিক কোমলমতি শিশুরা। শুধূ তাই নয়, এ দাবি সমগ্র উপজেলাবাসীর।

স্থানীয় সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা মনে করেন, ব্যক্তিগত বা সরকারি অর্থায়নে শিশুপার্ক ও বিনোদন কেন্দ্র গড়ে তোলা যেতে পারে। আর এটি নির্মাণ করা হলে বিনোদনের পাশাপাশি এখান থেকে প্রচুর রাজস্ব আয়ও বাড়বে এবং কোমলমতিদের মানসিক ও শারীরিক বিকাশে ভূমিকা রাখবে। অনেক মানুষের কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হবে। যুবসমাজ দেশ ও সমাজের কল্যাণে কাজ করতে অনুপ্রাণিত হবে।

বেতাগী পৌরসভার প্যানেল মেয়র হাদীছুর রহমান পান্না বলেন,‘শিশুদের দাবির সাথে আমরাও একমত। বেতাগী পৌর শহরে একটি বিনোদন কেন্দ্র কিংবা পাক নির্মাণ করার বিষয় পৌর কর্তৃপক্ষের পরিকল্পনায় রয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. রাজীব আহসান বলেন,‘আজকের শিশু আগামী দিনের ভবিষৎ। তাদের সুন্দর জীবন গড়তে এখানে শিশুপার্ক ও বিনোদন কেন্দ্র স্থাপন করা হবে।’

Print Friendly, PDF & Email

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
বরগুনা বিভাগের সর্বশেষ
বরগুনা বিভাগের আলোচিত
ওপরে