২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং ১৬ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
শিকলে বন্দি দিন কাটছে মানসিক প্রতিবন্ধি মেধাবী... জাতীয় পর্যায়ে স্বাধীনতা পুরষ্কার পাচ্ছেন টাঙ্গাইলের... মেলার মধ্য দিয়ে চাঁদপুর আরো উন্নয়নের ধারাবাহিকতায়... নোয়াখালীতে এতিম বিলকিছের বিয়ে দিলো পুনাক বরগুনার দুই টি ইটভাটাকে ৪০ লাখ টাকা জরিমানা

মিয়ানমারকে যুদ্ধাপরাধের বিচারে আরও সময় দিন : সু চি

  সমকালনিউজ২৪

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ

সংঘাত কবলিত রাখাইন রাজ্যে যুদ্ধাপরাধের বিচারের জন্য আরও সময় চেয়েছেন মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু চি।

বৃহস্পতিবার ফিন্যান্সিয়াল টাইমসে লেখা এক নিবন্ধে বিচারের জন্য আরও সময় চান তিনি। তার এই নিবন্ধ প্রকাশের পর জাতিসংঘের শীর্ষ আদালত ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিস (আইসিজে) রোহিঙ্গা গণহ’ত্যা ইস্যুতে গাম্বিয়ার করা মা’মলার রায় প্রদান করে।

সু চি তার নিবন্ধে লেখেন, মিয়ানমারের ইউনিয়ন অ্যাটর্নি জেনারেল এরই মধ্যে ঘোষণা দিয়েছেন যে- রাখাইন রাজ্যের বিভিন্ন গ্রামে লুটপাট ও অগ্নিসংযোগে যেসব বেসামরিক ব্যক্তি জড়িত ছিল তাদের বি’রুদ্ধে তদন্ত শুরু হবে। সামরিকবাহিনীর সদস্যদের মাধ্যমেও যুদ্ধাপরাধ সংঘটিত হয়ে থাকতে পারে। তাদেরকেও আমাদের নিজস্ব সামরিক বিচার ব্যবস্থায় নিয়ে আসা হবে।

মিয়ানমারের এই নেতা লেখেন, এসব প্রক্রিয়ার ওপর আমাদের আস্থা রাখা উচিৎ। নিজ বাহিনীর সদস্যদের বি’রুদ্ধে অভিযোগ আনা এবং বিচার করা সামরিকবাহিনীর জন্য কখনোই সহজ কোনো কাজ নয়। বিশ্বজুড়েই এটি চ্যালেঞ্জ হিসেবে বিবেচিত হয়। তার মানে এই নয় যে, তাৎক্ষণিকভাবে সেখানে আন্তর্জাতিক বিচার শুরু করতে হবে।

অং সান সু চি আরও লেখেন, রাখাইনে যে অপরাধ সংঘটিত হয়েছে তার তথ্য সংগ্রহ করে যথাযথভাবে স্বীকৃতি দিতে মিয়ানমারের আরও সময় প্রয়োজন। উপযুক্ত সময় দিলেই অভ্যন্তরীণ বিচার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা সম্ভব হবে। অনাস্থা ও ভয়, কুসংস্কার ও ঘৃণা এবং দীর্ঘকালীন সাম্প্রদায়িক সহিংসতা থেকে বিচারের মাধ্যমেই বের হয়ে আসা সম্ভব। এ বিষয়টিই আমার লক্ষ্য। আর এটি অর্জনেই কাজ করে যাচ্ছি আমরা।

প্রসঙ্গত, এরই মধ্যে রোহিঙ্গাদের সুরক্ষা নিশ্চিতে মিয়ানমারকে প্রয়োজনীয় সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছে আইসিজে। একইসঙ্গে রোহিঙ্গাদের সুরক্ষার জন্য কী পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে তা প্রথম ৪ মাসে একবার ও পরবর্তীকালে প্রতি ৬ মাস পর পর প্রতিবেদন জমা দিতেও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে মিয়ানমারকে।

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বশেষ
আন্তর্জাতিক বিভাগের আলোচিত
ওপরে