২৩শে মার্চ, ২০১৯ ইং ৯ই চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
আমতলীর মরাজান খালের ব্রীজটি এখন মরণ ফাঁদ প্রধানমন্ত্রীকে ডাকসু ভিপি নূরের প্রথম উপহার ১২ বছরের ছাত্রকে দিয়ে চাহিদা মেটাতেন শিক্ষিকা জাপার নতুন যুগ্ম-মহাসচিব হাসিবুল ইসলাম জয় ওবায়দুল কাদের এখন শারীরিকভাবে সম্পূর্ণ সুস্থ

মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে ‘আপত্তিকর’ মন্তব্যের অভিযোগ

 জান্নাতুল ফেরদৌস, রাবি সমকাল নিউজ ২৪

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) প্রেস ক্লাবের সভাপতি মানিক রায়হান বাপ্পীর বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধা কোটা নিয়ে ‘আপত্তিকর’ মন্তব্য করার অভিযোগ উঠেছে। শনিবার (১৬ মার্চ) সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন রাবি শাখা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড’র সভাপতি তারিকুল হাসান।

সংবাদ সম্মেলনে তারিকুল হাসান বলেন, ‘মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান ও বীর মুক্তিযোদ্ধার নাতি বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী উমর ফারুক। সে বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস ক্লাবের সদস্য ছিলেন। গত বছরের ২৪ ডিসেম্বর প্রেস ক্লাবের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ক্লাবের বর্তমান সভাপতি মানিক রায়হান বাপ্পী তাকে বিভিন্নভাবে হেনস্তা করে। এছাড়া ফারুক মুক্তিযোদ্ধার নাতি হওয়ায় মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে ফারুককে ‘অকথ্য’ ভাষায় গালাগালি করে বাপ্পী।’

এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘গত ১৯ ফেব্রুয়ারি শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ এনে কোন রকম শোকজ ছাড়াই উমর ফারুককে ক্লাব থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করে। মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে। একইসঙ্গে ক্লাব সভাপতির এই ষড়যন্ত্রমূলক বহিষ্কারের বাপ্পীর বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি।’

উমর ফারুক অভিযোগ করে বলেন, ‘মানিক রায়হান বাপ্পী স্বেচ্ছাচারীতামুলক আমার সঙ্গে আচরণ করেছে। এছাড়া বিভিন্ন সময় ক্লাবে আমাকে মানসিকভাবে হেনস্তা করতেন। কিছু বললে আমি মুক্তিযোদ্ধার নাতি হওয়ায় মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে আমাকে ‘অকথ্য ভাষায়’ কথা বলতেন।’

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে মানিক রায়হান বাপ্পী বলেন, ‘উমর ফারুক বিরুদ্ধে ক্লাবের অনেকেই অভিযোগ করছে। যার প্রেক্ষিতে ক্লাবের অধিকাংশ সদস্যদের মতামতের ভিত্তিতে তাকে বহিস্কার করা হয়েছে। এছাড়া তাকে কোন ধরণের গালিগালাজ করা হয়নি। আমার বিরুদ্ধে ফারুক যে অভিযোগ করছে তা ভিত্তিহীন।’

এদিকে বাপ্পীর এসব কর্মকা- নিয়ে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বরাবর অভিযোগ করেন উমর ফারুক। উপাচার্য বিষয়টির দেখভালের দায়িত্ব দেন জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক অধ্যাপক প্রভাষ কুমার কর্মকারকে।

এ বিষয়ে জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক অধ্যাপক প্রভাষ কুমার কর্মকার বলেন, ‘অভিযোগের প্রেক্ষিতে মানিক রায়হানের বিরুদ্ধে তদন্ত অব্যাহত রয়েছে। শুধু তাই নয় এ বিষয়ে ইতিমধ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। অভিযোগ প্রমানিত হলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ প্রজন্মের আহ্বায়ক উমর কুমার রায়, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডর সদস্য উমর ফারুক প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
ওপরে