২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং ৮ই ফাল্গুন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
বরিশাল শেবাচিমে ময়লার স্তূপে মিললো ২২ অপরিণত শিশুর... স্বামীর লাশ ওয়ারড্রবে রেখে অফিস করলেন স্ত্রী! ঐক্যফ্রন্টকে গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর দাওয়াত চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ করার দাবিতে মানববন্ধন বন্য হাতির আক্রমণে নিহত জাসদ নেতা সাইমুন কনক

মুখ খুললেন মিতুর্

 অনলাইন ডেস্ক। সমকাল নিউজ ২৪

আত্মহত্যাকারী চিকিৎসক মোস্তফা মোরশেদ আকাশের স্ত্রী তানজিলা হক চৌধুরী মিতুর তিন দিনের রিমান্ড শেষ হয়েছে। গত বুধবার থেকে শুক্রবার পর্যন্ত পরকীয়ার দায়ে অভিযুক্ত মিতুকে তিন দফা জিজ্ঞাসাবাদ করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা চট্টগ্রাম মহানগরীর চান্দগাঁও থানার এসআই মোহাম্মদ আবদুল কাদের।

শুক্রবার চান্দগাঁও থানায় মিতুকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন নগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) আমেনা বেগম। পরে সাংবাদিকদের তিনি জানান, প্রেমিকদের সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্কের কথা স্বীকার করেছেন মিতু। বিয়ের পরও একাধিক বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে তার অনৈতিক সম্পর্ক ছিল। রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদে মিতু এমন তথ্য দিয়েছেন।

জিজ্ঞাসাবাদে মিতু জানান, আমেরিকায় অবস্থানকালে উত্তম প্যাটেল নামে এক বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে তিনি একাধিকবার অনৈতিক সম্পর্ক গড়েছেন। এর আগে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের বয়ফ্রেন্ড ডা. মাহাবুবুল আলমের সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন মিতু।

এর আগে রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদের প্রথমদিন মিতু জানিয়েছিলেন, বিয়ের পর শোভন নামে বুয়েটের এক ছাত্রসহ একাধিক ছেলেবন্ধু ছিলো তার। তবে মিতু তাদের সঙ্গে শুধু বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক থাকার কথা জানালেও শারীরিক সম্পর্কের কথা অস্বীকার করেন।

তবে শেষ দিনের রিমান্ডে তাকে পুনরায় জিজ্ঞাসাবাদ করেন নগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার আমেনা বেগম। জিজ্ঞাসাবাদে মিতু বিয়ের পর দু’জনের সঙ্গে তার শারীরিক সম্পর্ক থাকার কথা স্বীকার করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আবদুল কাদের জানান, ছয়জনের বিরুদ্ধে আত্মহত্যা প্ররোচনা মামলা হলেও এখন পর্যন্ত শুধু মিতুকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পলাতক পাঁচ আসামীর মধ্যে রয়েছেন- মিতুর বাবা আনিসুল হক চৌধুরী ও মিতুর বয়ফ্রেন্ড ডা. মাহাবুবুল আলম। তাদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

অন্যদিকে মিতুর মা শামীমা শেলী, ছোট বোন সানজিলা হক চৌধুরী আলিশা এবং উত্তম প্যাটেল আমেরিকায় অবস্থান করছেন।

প্রসঙ্গত, ৩১ জানুয়ারি ভোরে স্ত্রীর অনৈতিক সম্পর্ক মেনে নিতে না পেরে নিজ শরীরে ইনজেকশান পুশ করে আত্মহত্যা করেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক মোস্তফা মোরশেদ আকাশ। মৃত্যুর আগে তিনি ফেসবুকে দেয়া স্ট্যাটাসে প্যাটেল, মাহাবুবসহ একাধিক ব্যক্তির সঙ্গে স্ত্রীর অনৈতিক সম্পর্কের অভিযোগ আনেন এবং তার আত্মহত্যার জন্য স্ত্রী দায়ী বলে উল্লেখ করেন।

Print Friendly, PDF & Email

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
ওপরে