২৪শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং ১১ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
ধেয়ে আসছে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় প্রেমিকের প্রতারণা, ভিডিও কলে জীবন দিল ইডেন ছাত্রী! রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আগুন, মসজিদসহ ৩০ ঘর ভস্মীভূত রাজশাহীর চারঘাটে মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিতকরণে... দুর্গাপুরে কিশোরী ধর্ষিত; ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা

যে কারণে হতাশ হয়ে পড়েছেন শাকিবের ভক্তরা

  সমকাল নিউজ ২৪
যে কারণে হতাশ হয়ে পড়েছেন শাকিবের ভক্তরা

বিভিন্ন কারণে হতাশ হয়ে পড়েছে শাকিবের ভক্তরা।  বছরের শুরুতে এখনো কোনো নতুন চলচ্চিত্র মুক্তি পায়নি। সিনেমা হলগুলোতে পুরাতন ছবি চলছে। এর মধ্যে বেশির ভাগ সিনেমা হলে চলছে শাকিব খান অভিনীত পুরাতন ছবিগুলো, যা দেখে বিরক্তি প্রকাশ করছেন চলচ্চিত্রপ্রেমী দর্শক।

পল্টনে অবস্থিত জোনাকী সিনেমা হলে চলছে শাকিব অভিনীত চলচ্চিত্র ‘খুনি শিকদার’। মনোয়ার খোকন পরিচালিত এই ছবিতে শাকিবের বিপরীতে অভিনয় করেছেন নায়িকা নদী। গতকাল সোমবার ছবিটি প্রসঙ্গে কথা বলেন জোনাকী সিনেমা হলের ম্যানেজার দেলোয়ার হোসেন।

‘খুনি শিকদার’ নিয়ে কিছু দর্শক বিরক্ত, এমন খবর জানিয়ে দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘গতকাল বিকেল ৩টার শোতে হলে দর্শক ছিল ২১৩ জন। আমাদের সিনেমা হলের আসনসংখ্যা হাজারেরও বেশি। কোনো নতুন ছবি নেই। পুরাতন ছবি দিয়ে কোনোভাবে হল চলছে। তাই দর্শক আসবে কেন? শাকিব খানের ছবি চালাচ্ছি, যে কারণে হলে ২১৩ জন দর্শক আছে। অন্য নায়কদের ছবি চালালে এই দর্শকও পেতাম না। তবে শাকিবের ছবি হলেও কিছু দর্শক বিরক্ত, কারণ এটা পুরোনো ছবি। অনেকে ছবি দেখতে এসেও ফিরে যাচ্ছেন।’

আরো পড়ুন: প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের অপরুপ লীলাভূমি সিলেট এর জাফলং

দেলোয়ার হোসেনের কথার সঙ্গে দর্শকের কথার মিল পাওয়া যায়। মোহাম্মদ রফিক নামের এক দর্শক এ বিষয়ে খোলামেলা কথা বলেন। তিনি বলেন, “শাকিব খানের অনেক নতুন যৌথ প্রযোজনা ও আমাদের দেশি ভালো ছবি রয়েছে, অথচ দেখেন এখনো সেই বহু দিন আগের ‘খুনি শিকদার’ চালাচ্ছে। শিকারি, নবাব, নাকাব ছবিগুলো দ্বিতীয়বার দেখতেও খারাপ লাগে না। সেই ছবিগুলো চালালেও দেখতে পেতাম। আজ ছবি দেখতে এসেছিলাম, এখন না দেখেই চলে যাচ্ছি।”

এ বিষয়ে দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘যে ছবিগুলোর কথা উনি বলেছেন, সেগুলো চালাতে হলে আমাদের খরচ অনেক বেশি হয়। এ জন্য আমরা পুরাতন দিনের ছবিগুলো বাধ্য হয়ে দেখাচ্ছি।’ খরচ বেশির কারণ জানতে চাইলে দেলোয়ার বলেন, “শিকারি কিংবা নবাব যদি আমরা চালাতে চাই, তাহলে প্রযোজককে নগদ টাকা দিতে হবে। প্রতি সপ্তাহে প্রজেক্টর ভাড়া দিতে হবে ১০ হাজার টাকা। টিকেটপ্রতি কিছু টাকা দিতে হবে প্রযোজকে।

অন্যদিকে, ‘খুনি শিকদার’ ছবি চালাচ্ছি পেন ড্রাইভ দিয়ে। প্রযোজকের হাতে পাঁচ হাজার টাকা দিয়ে দিলে হয়ে যায়। যেসব দর্শক ফিরে যাচ্ছে, তাদের সংখ্যা কম। বেশি টাকা দিয়ে ছবি আনলে আমরা লাভ করতে পারব না। মূল টাকাও আসবে না। এ জন্য এ বিষয় নিয়ে আমরা মাথা ঘামাচ্ছি না।”

Print Friendly, PDF & Email

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
ওপরে