৩০শে মে, ২০২০ ইং ১৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
পার্বতীপুরে কিশোরীকে অ’পহরনের দায়ে কা’রাগারে যুবক চাঁদপুরে করোনা উপসর্গে আইসোলেশন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন... বানারীপাড়ায় একরাতে ১২ টি পরিবারের বসতভিটা সন্ধ্যা নদী... নওগাঁয় সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেলের ২ আরোহী নি’হত ফুলবাড়ীতে পানিতে তলিয়ে গেছে বোরো ধান। দিশেহারা কৃষক

যে দুটি ফল খেলে ধূমপানে কোন ক্ষতি হবে না

  সমকালনিউজ২৪

ধূমপান স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর কে না জানে! তাও স্বাস্থ্যের তোয়াক্কা না করেই অবাধে চলে ধূমপান। স্বাভাবিক ভাবেই ফুসফুসে ক্যান্সার সহ শ্বাস-প্রশ্বাসজনিত বিভিন্ন রোগের সম্ভাবনা বেড়ে চলে। ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন-এর তথ্য অনুযায়ী, প্রতি বছর বাংলাদেশে ৫৭ হাজারেরও বেশি মৃত্যুর কারণ তামাকজাত দ্রব্য সেবন।

তবে ধূমপায়ীদের জন্য ভাল খবর দিচ্ছে সাম্প্রতিক এক গবেষণা। আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ‘দ্য ট্রিবিউন’-এ প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, আপনার রান্নাঘরেই মজুত রয়েছে এমন দু’টি জিনিস, যা নিয়মিত খেলে ধূমপানের ক্ষতি পুষিয়ে যেতে পারে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ‘জনস হপকিনস ব্লুমবার্গ স্কুল অফ পাবলিক হেলথ’-এর গবেষকরা জানিয়েছেন, ধূমপানের পাশাপাশি যাঁরা বেশি করে আপেল ও টমেটো খান, গবেষণায় দেখা গেছে তাঁদের ফুসফুস অনেক কম ক্ষতিগ্রস্থ হয়।

৬৫০ জন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তির উপর একটি সমীক্ষা চালানো হয়, যাঁরা ১০ বছরেরও বেশি সময় ধরে ধূমপান করেছেন। সমীক্ষায় দেখা যায়, ১০ বছরে তাঁদের ফুসফুসের যে পরিমাণ ক্ষতি হওয়ার কথা, সেটা হয়নি। জিজ্ঞেস করলে তাঁরা জানান, প্রচুর পরিমাণে টমেটো, আপেল-সহ বিভিন্ন ধরনের ফল খেতেন তাঁরা। এটিকেই সুস্থতার চাবিকাঠি বলে জানাচ্ছেন গবেষকরা।

গবেষকদের মতে, প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তিরা যদি প্রতিদিন গড়ে একজোড়া টমেটো এবং তিনটি করে আপেল খান, তাহলে তাঁদের ফুসফুস অন্যদের তুলনায় কম ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তাজা টমেটো ও ফলের বদলে যদি প্রক্রিয়াজাত টমেটো ও ফল খাওয়া হয়, তাহলে কিন্তু কোনও উপকার হয় না।

জনস হপকিনসের সহকারী অধ্যাপক ভ্যানেসা গার্সিয়া-লারসেন বলেছেন, ‘এই গবেষণায় দেখা গেছে, যে ব্যক্তিরা ধূমপান ছেড়ে দিয়েছেন, তাঁরা যদি ঠিকমতো ফল খান, তাহলে বয়স বাড়লেও ফুসফুসের কর্মক্ষমতা কমে যাবে না। উল্টে ফুসফুসের সমস্যা মিটে যেতে পারে। যে ব্যক্তিদের শ্বাসকষ্টের সমস্যা আছে, তাঁদের অবশ্যই প্রচুর পরিমাণে ফল ও টমেটো খাওয়া উচিত।’

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বশেষ
ওপরে