২রা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ ১৯শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
মতলবে আগুনে পুড়ে ছাই ৪ টি দোকান রাতে শীতবস্ত্র নিয়ে মুজিব বর্ষের ঘরে ঘরে ইউএনও ‘রাজীব’ রাজশাহীর বাগমারা ডিগ্রি কলেজে বরণ এবং ওরিয়েন্টেশন... শুরু হয়েছে সুন্দরবনে গোলপাতা আহরন মৌসুম আমতলীতে প্রতিবন্ধীদের মাঝে সেলাই মেশিন ও হুইল চেয়ার...

রাজশাহীতে মাদক ব্যবসা নিয়ে দুপক্ষের সংঘর্ষে যুবদল নেতা গুলিবিদ্ধর অভিযোগ

 নাজিম হাসান,রাজশাহী প্রতিনিধিঃ সমকালনিউজ২৪

রাজশাহীতে অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বের জেরে ছাত্রলীগের সাবেক এক নেতা যুবদলের এক কর্মীকে গুলি করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) রাত ১০টার দিকে, রাজশাহী মহানগরীর রাজারহাতা এলাকায় এ গুলির ঘটনা ঘটে।

তবে এ নিয়ে থানায় কোনো অভিযোগ হয়নি।

আহত ব্যক্তির নাম আরিফুল আলম জন (৪৫)। সে রাজশাহী সরকারি সিটি কলেজসংলগ্ন রাজারহাতা এলাকার বাসিন্দা। আরিফুল আলম জনের বাবার নাম আশরাফুল আলম। এছাড়া রাজশাহী মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক আসলাম সরকার তার চাচা।

ঘটনার পর আহত আরিফুল আলম জনকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। অস্ত্রোপচারের পর তাকে ওয়ার্ডে দেওয়া হয়েছে।

তবে মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হাসান রাজীব গুলির অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, গুলিবিদ্ধ হওয়ার খবর শুনে তিনি সেখানে গিয়েছিলেন। মাদকের কারবার নিয়ে ওই যুবদল কর্মীর নিজেদের মধ্যে দ্বন্দ্বের কারণে এই গুলির ঘটনা ঘটে থাকতে পারে।

হাসপাতালে আহতের স্বজনেরা জানান, মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হাসান রাজীব গুলি করেছেন।

আহত আরিফুলের স্বজনেরা বলেন, রাতে রাস্তার ওপর প্রাইভেট কার রাখা নিয়ে স্থানীয় কয়েকজন যুবকের সঙ্গে আরিফুলের তর্কবিতর্ক হয়। এ ঘটনার পর ওই যুবকেরা রটিয়ে দেন যে আরিফুল আওয়ামী লীগকে গালিগালাজ করেছেন।

পরে ছাত্রলীগের সাবেক নেতা রাজীব আরিফুলকে মারতে যান। তবে আরিফুল ওই সময় সেখানে ছিলেন না। পরে রাতে আবার আরিফুলকে একা পেয়ে রাজীব তাঁর দলবল নিয়ে এসে তার মাথায় পিস্তল ঠেকান। একপর্যায়ে ঊরুতে গুলি করে পালিয়ে যান।

তবে নিজে গুলি করার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ছাত্রলীগের সাবেক নেতা রাজীব। বলেন, আরিফুল মাদক ব্যবসা করে। মাদক ব্যবসা নিয়েই তার পার্টনারদের সঙ্গে গন্ডগোল হচ্ছিল। তার পার্টনাররাই গুলি করেছে বলে শুনলাম। ঘটনার পর আমরা গেলে লোকজন বলল, ওদের নিজেদের মধ্যে গন্ডগোল। তোমরা সাইডে যাও। তখন আমরা চলে এসেছি।

স্থানীয়রা বলছেন, রাজশাহী সিটি কলেজ এলাকায় মাদক ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করেন আরিফুল আলম জন। তার কাছ থেকে কমিশন আদায় করেন ছাত্রলীগের সাবেক নেতা রাজীব। নগর ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত হওয়ার পর আরিফুল কমিশন দেওয়া বন্ধ করে দেন। মূলত এ নিয়েই আরিফুলের ওপর ক্ষুব্ধ ছিলেন মাহমুদ হাসান রাজীব। এর জের ধরেই চলে গুলি।

এ বিষয়ে মহানগরীর বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাজহারুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় থানায় এখনো কোনো অভিযোগ হয়নি। তবে গুলি করেছে কি না, তা আমরা নিশ্চিত নই। পুলিশ নিয়মমাফিক তদন্ত করছে। কারও কোনো অভিযোগ থাকলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
রাজশাহী বিভাগের সর্বশেষ
ওপরে