১৮ই জুন, ২০১৯ ইং ৪ঠা আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
সংবাদ প্রকাশের পর ডিসির সহযোগীতায় ভাতা কার্ড পেল ১৩ জন... নওগাঁয় পাটক্ষেত থেকে দুই কিশোরসহ মোট ৩জনের লাশ উদ্ধার ভারত থেকে বেনাপোল দিয়ে দেশে ফিরল বাংলাদেশি ৬ নারী চয়ন কে মামলা থেকে বাঁচাতেই প্রতিবন্ধী শরিফুলের... রাজাপুরে কৃতি শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ

রাণীনগরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় একাধিক মামলার প্রধান আসামীর পলায়ন

 নাজমুল হক নাহিদ,নওগাঁ সমকাল নিউজ ২৪

নওগাঁর রাণীনগরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে থেকে লিটন হোসেন (২৮) নামের একাধিক মামলার আসামী পালিয়ে গেছে। এতে করে এলাকার জনসাধারনের মাঝে এক চাঞ্চল্যকর অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

থানা সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার পশ্চিম বালুভরা গ্রামের মুজিবর রহমানের ছেলে লিটন হোসেন মারপিট ও ভাংচুরের একাধিক মামলার একজন অন্যতম আসামী। গত রোববার সন্ধ্যায় পূর্বের শত্রুতার জেরে উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক আনোয়ার হোসেনের স্ব’মিল ও বাড়িতে লিটনসহ আরো কয়েকজন ভাংচুর করে। এছাড়াও সোমবার বিকালে প্রকাশ্যে উপজেলা আওয়ামীলীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক আবু সাদাত সায়েমের উপজেলা সংলগ্ন অফিসের সামনে রাখা মটরসাইকেল লিটনসহ আরো কয়েকজন বিনা কারণে ভাঙচুর করে। এ সময় পুলিশকে খবর দিলে ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ লিটনকে আটক করতে পারলেও অন্যরা পালিয়ে যায়। ভুক্তভুগি আনোয়ার হোসেন ও আবু সাদাত সায়েম সোমবার সন্ধ্যায় দুটি ঘটনায় লিটনকে প্রধান আসামী করে ১০-১২জনের নামে রাণীনগর থানায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেন। লিটন অসুস্থ্য থাকার কারণে থানা পুলিশ আসামী লিটনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে দেয়। মঙ্গলবার সকাল ৭টায় লিটন টয়লেট করতে গিয়ে পুলিশি পাহারা ভেদ করে পালিয়ে যায়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় পুলিশি পাহারায় আসামীর পলায়ন একটি রহস্যজনক ঘটনা এবং এই ঘটনা সাধারন মানুষের মনে এক ভীতির সঞ্চার করেছে বলে এলাকাবাসীরা মনে করছেন।

রাণীনগর থানার দায়িত্বরত ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) তারেকুর রহমান সরকার বলেন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে আসামী লিটনের পলায়ন একটি অনাকাঙ্খিত ঘটনা। লিটনকে পুনরায় আটক করার জন্য পুলিশি তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এএসএম সিদ্দিকুর রহমান বলেন আমি কোর্টে হাজিরা দেওয়ার জন্য ঢাকায় এসেছি। বিষয়টি আমি শুনেছি। তদন্ত কর্মকর্তা পলাতক আসামীকে আটক করার জোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

জেলা পুলিশ সুপার ইকবাল হোসেন পিপিএম বলেন আমি বিষয়টি জেনেছি। তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
নওগাঁ বিভাগের সর্বশেষ
নওগাঁ বিভাগের আলোচিত
ওপরে