১৫ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৩১শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
আদমদীঘিতে রাতে দোকান খোলা রাখায় ৯ দোকানে জরিমানা ৭টির... রাজশাহীতে খাদ্য বাজারে নৈরাজ্য দেখার কেউ নেই’প্রশাসন... পাইকগাছার সোলাদানা ইউনিয়নে মরা কুচিয়া নদীর উপর... দুর্গাপুরে অজ্ঞাত নারীর লা’শ উদ্ধার সিলেট ওসমানী বিমানবন্দরে পাখির ধাক্কায় বিমান নষ্ট

শীতকালীন আমাদের সামাজিক দায়িত্ব ও কর্তব্য ।

  সমকালনিউজ২৪

অনামিকা রানী দাসঃ
পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ।

কুয়াশার চাদরে মুড়ে নানা ফুলে সেঁজে আসে শীতকাল। শীতে থরথর সেই কাঁপুনি যেমন কারো কাছে মজার কারো কাছে সাজার। শীত মানেই নানা রকম পিঠাপুলির ভাবনা।

মানুষ সামাজিক জীব। সে হিসেবে মানুষ হয়ে মানুষ কে সাহায্য করা তাদের পাশে দাঁড়ানো কর্তব্য।

এবারের শীতকাল যেন একটু ভিন্ন, শুধু শীত না করোনা যেন একটা নতুন চাপ বা চিন্তা। এমনিতেই প্রবল শীতে মানুষের ভোগান্তির শেষ থাকে না। তবে শীতকালে আমাদের পরিবারের বয়স্কদের বেশি যত্ন নেওয়া উচিত। আমাদের বাংলাদেশে পথে বসবাস এবং গৃহহীন মানুষের সংখ্যা অগণিত। আমাদের দেশে পথশিশুর সংখ্যাই ৬০০০০০।

প্রবল শীতে দিনমজুর লোকেরা কাজে যেতে পারে না ফলে তাদের আর্থিক অভাব অনটন দেখা দেয়। শীতে একদিকে গরম কাপড় নেই আবার কাজে যেতে পারে না বলে খাদ্যের অভাব। সরকার বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন রকম সাহায্য করে আসছে। শীতে ত্রাণ দেন। এছাড়াও নানা রকম সহযোগিতা করে থাকেন। নাগরিক হিসেবেও আমাদের কিছু দায় আছে। আশেপাশে গরীব এবং অসহায় মানুষদের সাহায্য করা। তাদের সচেতন করা।

এই করোনাকালীন নানা রকম পরামর্শ দিয়ে সাহায্য করা। শীতে কাতর হয়ে অনেক মানুষ আগুন জ্বালিয়ে তা থেকে উত্তাপ নেয়। শীতকালে এতটাই কুয়াশা পড়ে যে আশে পাশে থাকা মানুষকেও দেখা যায় না। অনেক সময় দুরগামী যানবাহনের দুর্ঘটনার খবর পাওয়া যায়। এতে এ ব্যপারে সবাইকে সচেতন করা দরকার। সকলকে এক হয়ে শীতে ক্ষতিগ্রস্ত লোকেদের পাশে দাঁড়াতে হবে।

যারা মানসিক রোগী বা পথে বাস করে তারা যাতে শীতকালীন নানা রকম রোগে আক্রান্ত না হয় সেজন্য তাদের আশ্রয় ও বস্ত্রের ব্যবস্থা করা। ছোটবাচ্চাদের শীতকালীন নানা রকম রোগ হয় এ বিষয়ে সচেতনতা দরকার। এতটাই শিশুদের ঠান্ডা জনিত রোগ বেড়ে যায় যে হাসপাতালেও তাদের জায়গা দিতে পারে না। অনেক শিশু এতে মারাও যায়। শুধু যে শিশু আর বৃদ্ধ তা নয় শীতে সচেতন না হলে সবাই হতে পারে অসুস্থ।

আমাদের এলাকায় অনেক দরিদ্র লোকেদের দেখেছি যারা খাদ্যই জোগার করতে পারে না । শীতে যেন তাদের কষ্টের শেষ রয় না। অনেক সময় বাসার পুরাতন বস্ত্র দান করেছি কিন্তু এখানে একজন নয়। একজন একজন করে সকলেরই এসব মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে। সরকার নয় জনগনের ও ব্যাপারে সহযোগিতার হাত বাড়াতে হবে। নানা রকম সংগঠন এখন গড়ে উঠেছে যারা আপ্রাণ চেষ্টা করে সাহায্য করার। শীতকাল প্রকৃতি কে সজীবতা দান করে। শীতেই প্রকৃতি প্রাণ সঞ্চয় করে নেয়, শিশির এ ভেজা ঘাসে।
মানুষ কে ভালবাসলে ভালবাসা পাওয়া যায়। তাই মানুষ হিসেবে শীতকালে সকলকে সাহায্য করা আমাদের কর্তব্য।

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
ওপরে