১৯শে মার্চ, ২০১৯ ইং ৫ই চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
রাকসু আন্দোলন মঞ্চকে আলোচনা সভা করতে দেয়নি প্রশাসন কালাইয়ে আ.লীগের দু”পক্ষের সংঘর্ষে ঘটনায় ইউপি... রাঙ্গামাটিতে ব্রাশ ফায়ারে প্রিসাইডিং অফিসারসহ নিহত ৭ নওগাঁর ১০ উপজেলায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচন কেন্দ্রে ভোটার... রাতের আঁধারে ঘুম থেকে জাগিয়ে হত্যা

সুন্দরবনের জোংড়ার খালে র‌্যাব-৮ ও জলদস্যুর সাথে বন্দুক যুদ্ধে আরিফ বাহিনীর ৪ দস্যু নিহত ঃ ৫টি আগ্নেয়াস্ত্র ও ১১৬ রাউন্ড গুলি উদ্ধার

 মাসুদ রানা,মংলা প্রতিনিধি সমকাল নিউজ ২৪

র‌্যাব-৮ ও জলদস্যু আরিফ বাহিনীর মধ্যে বন্দুক যুদ্ধে আরিফ বাহিনীর ৪ সদস্য নিহত হয়েছে। সোমবার দুপুর দেড়টার দিকে পুর্ব সুন্দরবনের চাদঁপাই রেঞ্জের জোংড়ার খালের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে ৫টি আগ্নেয়াস্ত্র ও ১১৬ রাউন্ড গুলি এবং ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন সরঞ্জামাদি। অস্ত্রসহ নিহত জলদস্যুর লাশ গতকাল রাতে মোংলা অথবা দাকোপ থানায় হস্তান্তর প্রক্রিয়া চলছে বলে জানায় র‌্যাব-৮। তবে বনজীবি ও জেলেদের নিরাপত্তা এবং দস্যু দমনে চলমান অভিযানের অংশ হিসেবে র‌্যাবের নিয়মিত টহলদান কালে এঘটনা ঘটে। লাশ হস্তান্তরের পরে ময়না তদন্তের জন্য তা মর্গে প্রেরন করা হবে বলেও র‌্যাব জানান।

র‌্যাব-৮ এর (বরিশাল) সুত্রে জানান, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত ১লা নভেম্বর ২০১৮ তারিখে সর্বশেষ আত্মসমর্পনের মাধ্যমে সুন্দরবনকে জলদস্যু ও বনদস্যু মুক্ত ঘোষনা করেছেন। সুন্দরবনকে জলদস্যু অবমুক্ত রাখতে র‌্যাব-৮ নিয়মিত টহল ও গোয়েন্দা নজরদারি অব্যাহত রেখেছে।

তার পরেও পুর্ব সুন্দরবনের চরাপুটিয়া,হারবাড়িয়া. মরা পশুর, জোংড়া ও দুবলারচর এলাকা থেকে গত দুই মাস ও চলতি মাসে প্রায় অর্ধশত জেলে ও প্রায় ২০/২৫টি ট্রলারসহ মাছ ও মালামাল ভাংচুর লুটতরাজ করে দস্যু বাহিনীর দসস্যরা। ওই সমস্ত জেলেদের মুক্তিপনের দাবিতে অপহরন করে জলদস্যু আরিফ বাহিনীর সদস্যরা। তারা জেলে বহরে হামলা,মারধর ও লুটপাট চালিয়ে প্রায় কোটি টাকার ইলিশ এবং অন্যান্য মাছসহ বিভিন্ন মালামাল লুট করে নেয় দস্যু গ্রুপটি।

এছাড়াও বনের অন্যান্য জায়গার বেশ কিছু এলাকা থেকে জেলে অপহরন করেছে এ দস্যুরা। তাই চলতি ফেব্রয়ারী থেকে অপহৃত জেলেদের উদ্ধারে ও দস্যুদমনে অভিযানে নামে র‌্যাব। র‌্যাব-৮ এর সদস্যরা এরই ধারাবাহিকতায় নিজস্ব গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে ২৫ ফেব্রুয়ারি সোমবার সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জ হতে আরিফ বাহিনীর ৪জন জলদস্যুকে গ্রেফতার করা হয়।

আটককৃত জলদস্যুদেরকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তাদের নাম পরিচয় যাথাক্রমে (১) আলতাফ হাওলাদারের ছেলে মোঃ সোহেল হাওলাদার (৩০), (২) তার সহদর মোঃ রুবেল হাওলাদার (২৭), (৩) আফজাল হোসেন’র ছেলে মোঃ রাজু (২৪), (৪) মৃত আওয়াল হাওলাদারের ছেলে মোঃ হালিম হাওলাদার (৩১)। নিহত জলদস্যুদের সকলের বাড়ী বাগেরহাট জেলার মোংলা উপজেলার সিগনাল টাওয়ার নামার চর এলাকায় বলে প্রাথমিক ভাবে জানা যায়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃত জলদস্যুরা স্বীকার করে যে, জলদস্যুতার কাজে ব্যবহৃত অস্ত্র ও গোলাবারুদ চাঁদপাই রেঞ্জের জোংড়ার খালে লুকিয়ে রেখেছে। আটককৃত জলদস্যুদের সাথে নিয়ে আভিযানিক দল চাঁদপাই রেঞ্জের জোংড়ার খালে যায়। তারা অভিযানের টহল দেয়ার সময় ওই এলাকার বনের ভিতর অন্য দস্যুদের আনাগোনা টের পায় এবং দস্যুদের পদচারনা দেখতে পায় র‌্যাব। র‌্যাব সদস্যরা সামনের দিকে এগিয়ে গেলে দস্যুদের কথা বার্তার শব্দ শুনে অভিযানকারীরা বনের মধ্যে প্রবেশ করলে সেখানে পূর্ব থেকে অবস্থান নেয়া বনদস্যু আরিফ বাহিনী র‌্যাব সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে।

এ সময় র‌্যাবও আত্বরাক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায়। এহেন পরিস্থিতিতে আটককৃত জলদস্যুরা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে র‌্যাব ও জলদস্যুদের গোলাগুলির মাঝখানে পড়ে উভয় পক্ষের গোলা গুলিতে ঘটনাস্থলে গুলিবিদ্ধ হয়ে বাহিনীর ৪ দস্যু নিহত হয়। আনুমানিক ৫-৬ ঘন্টা উভয় পক্ষের মধ্যে গুলি বিনিময়ের পর আভিযানিক দল উপস্থিত জেলেদের সাথে নিয়ে গোলাগুলীর এলাকা তল্লাশী শুরু করে। ওই এলাকার বনের মধ্যে তল্লাশী চলাকালীন সময়ে উপস্থিত জেলেরা ৪ জন গুলিবিদ্ধ সক্রিয় জলদস্যুকে উদ্ধার করে। পরবর্তীতে চিকিৎসার জন্য আহত জলদস্যুদের স্থানীয় স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদেরকে মৃত ঘোষনা করেন।

এছাড়া ঘটনাস্থলের বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি চালিয়ে, বিক্ষিপ্তভাবে ছড়ানো ছিটানো অবস্থায় কয়েকটি আগ্নেয়াস্ত্র ও বেশ কিছু গুলী উদ্ধারা করা হয়। উদ্ধারকৃতের মধ্যে ৩টি বিদেশী একনালা বন্দুক, ১টি বিদেশী দোনালা বন্দুক, ১টি ওয়ান শুটারগানসহ মোট ৫টি আগ্নেয়াস্ত্র, ৬২ রাউন্ড বন্দুকের তাজা গুলী ও ৫৪টি বন্দুকের গুলীর খালি খোসা উদ্ধার করে।

জলদস্যুদের মৃত দেহ ৪টি এবং উদ্ধারকৃত অস্ত্র ও গোলাবারুদসহ অন্যান্য আলামত সমূহ স্থানীয় থানায় মামলা রুজু করে জমা দেয়া প্রক্রিয়া চলছে বলে জানান র‌্যাব-৮ এর সদস্যরা। র‌্যাব আরো জানায় সুন্দরবনের জলদস্যু/বনদস্যুদের বিরুদ্ধে র‌্যাব-৮ এর ক্রমাগত অভিযান অব্যাহত থাকবে।

Print Friendly, PDF & Email

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
বাগেরহাট বিভাগের সর্বশেষ
বাগেরহাট বিভাগের আলোচিত
ওপরে