১৬ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং ১লা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

samakalnew24
samakalnew24
শিরোনাম:
ঝালকাঠিতে পাওনা টাকাকে কেন্দ্র করে হা’মলায় আহত... অ’পহরণের ৫ দিন পর ঠাকুরগাঁও থেকে তরুণীকে উ’দ্ধার বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্ট... র‌্যাবের অ’ভিযানে ২৫৬০ পিস ই’য়াবাসহ ব্যবসায়ী... দুর্গাপুরে হা-ডু-ডু প্রতিযোগিতা

স্কুল শিক্ষিকা জয়ন্তী’র চা’ঞ্চল্যকর হ’ত্যার র’হস্য উদ’ঘাটন করে—- পিবিআই

 নজরুল ইসলাম,চাঁদপুর, সমকালনিউজ২৪

চাঁদপুর শহরের ষোলঘর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা জয়ন্তী চক্রবর্তী’র চা’ঞ্চল্যকর হ’ত্যায় ডিস লাইনম্যান জামাল হোসেন ও তার মালিক আনিছুর রহমান পালা’ক্রমে ধ’র্ষণের পর হ’ত্যা করেন বলে স্বীকা’রোক্তি দিয়েছে।

১৮ আগস্ট রোববার বিকেলে শহরের ওয়ারলেছ মোড়ে পিবিআই চট্টগ্রাম বিভাগের বিশেষ পুলিশ সুপার মো. ইকবাল হোসেন হ’ত্যার র’হস্য ও তথ্য তুলে ধরে পিবিআই চাঁদপুর জেলা কার্যালয়ে প্রেস বিফ্রিং করে সাংবাদিকদেরকে এ তথ্য জানান।

পুলিশ জানায়, গত ২১ জুলাই দুপুরে শহরের ষোলঘর পানি উন্নয়ন বোর্ডের স্টাফ কোয়াটারে স্বপরিবারে বসবাসকারী পানি উন্নয়ন বোর্ডের হিসাব সহকারী অলোক গোস্বামী’র স্ত্রী শিক্ষিকা জয়ন্তী চক্রবর্তী (৪৫) কে ডিস লাইনম্যান জামাল হোসেন ও মালিক আনিছুর রহমান ধ’র্ষণের পর ঘরে থাকা ধা’রালো চুরি দিয়ে হ’ত্যা করে। এই ঘটনায় পরদিন শিক্ষিকার স্বামী অলোক গোস্বামী চাঁদপুর মডেল থানায় অ’জ্ঞাতনামা আসামী করে হ’ত্যা মামলা দায়ের করেন। এই ঘটনায় মামলার তদ’ন্তকারী কর্মকর্তা চাঁদপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক অনুপ চক্রবর্তী ২৪ জুলাই রাতে ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে জামাল হোসেনকে শহরের ষোলঘর হোটেল আল-রাশিদা এলাকায় তার বাসা থেকে এবং আনিছুর রহমানকে ষোলঘর পাকা মসজিদের বিপরীত সড়কের বাসা থেকে আ’টক করেন। এরপর ৪ আগস্ট ঘটনাটি চা’ঞ্চল্যকর হ’ত্যা মামলা হিসেবে তদন্ত কার্যক্রম পিবিআই কে হ’স্তান্তর করা হয়।

পিবিআই পুলিশ পরিদর্শক মো. কবির আহমেদ এর নেতৃত্বে পিবিআই চাঁদপুরের একটি চৌকুস টীম গ্রে’ফতারকৃত আ’সামীদেরকে আদা’লতের অনুমতিক্রমে দুই দিনের রি’মান্ডে এনে নিবিড়ভাবে ব্যাপক জি’জ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে জামাল ঘটনায় তার সক্রিয় স’ম্পৃক্ততা করে বিস্তারিত বর্ণনা দেয়। পিবিআই চট্টগ্রাম বিভাগের বিশেষ পুলিশ সুপার মো. ইকবাল হোসেন আসামী জামালের দেয়া জবানবন্দির বরাত দিয়ে বলেন, ঘটনার দিন দুপুরে আনুমানিক ১২টার দিকে অভিযুক্ত আনিছুর রহমান ও জামাল পূর্ব পলিকল্পনা মোতাবেক পাউবো’র ভিতরে পরিত্যাক্ত ঘরে এসে দু’জনে ই’য়াবা সেবন করে। তারপর দু’জনেই জয়ন্তী চক্রবর্তীর বাসায় যায়। নীচতলার সানশেডে উঠে জামাল ডিসের লাইন নাড়াচাড়া করলে জয়ন্তী টিভি দেখায় সমস্যা দেখা দেয়। তখন তিনি বারান্দায় বেরিয়ে এসে অভি’যুক্তদের টিভি দেখতে সমস্যা হচ্ছে বলে জানালে তারা কৌ’শলে বাসায় প্রবেশ করার জন্য লাইন ঠিক করার কথা বলে বাসার নীচের গেইটের চাবি নীচে ফেলতে বলে। জয়ন্তী চক্রবর্তী সরল বিশ্বাসে চাবি নীচে ফেললে প্রথমে আনিছ ও পরে জামাল বাসায় প্রবেশ করে।

জয়ন্তীকে একা পেয়ে ধ’র্ষণের উদ্দেশ্যে আনিছ দস্ত’দাস্তি শুরু করে। পরে জামাল ও ঘরে প্রবেশ করে দু’জনে মিলে টানাহে’চড়া শুরু করে। এক পর্যায়ে জয়ন্তী মেঝেতে পড়ে গেলে দু’জনে ঝা’পটে ধরে একে অন্যের সহায়তায় মুখ চে’পে ধরে প্রথমে আনিছ ও পরে জামাল পালা’ক্রমে জয়ন্তীকে জো’রপূর্বক ধ’র্ষণ করে।

ধ’র্ষণের পর জয়ন্তী হু’মকি দেয় যে, এই ঘটনা লোকজনদেরকে বলে দিবে। তখন তারা দু’জন ক্ষিপ্ত হয়ে পুনঃরায় ঝা’পটে ধরে ঘরের র‌্যাকে থাকা ধারালো চুরি দিয়ে জামাল জয়ন্তীর গলাকে’টে হ’ত্যা করে। পরে আনিছ বাথরুম থেকে মগে করে পানি এনে রক্তমাখা চুরিটি মর’দেহের উপর ধুয়ে ধ’র্ষণের আ’লামত বিনষ্টের উদ্দেশ্যে ম’রদেহের নিম্না’ঙ্গের উপর আরো পানি ঢালে এবং চুরিটি পূর্বের স্থানে রেখে দেয়।

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
চাঁদপুর বিভাগের সর্বশেষ
চাঁদপুর বিভাগের আলোচিত
ওপরে